ভারতের সাথে চুক্তি: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে চিঠি দেবে বিএনপি

৩ নভেম্বর ২০১৯


ভারতের সাথে চুক্তি: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে চিঠি দেবে বিএনপি

বাংলাদেশের প্রধান বিরোধী দল বিএনপি বলছে, সম্প্রতি ভারতের সাথে বাংলাদেশের যেসব চুক্তি হয়েছে সে সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে দলটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে চিঠি দেবে। শনিবার রাতে বিএনপির স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। শেখ হাসিনার সর্বশেষ দিল্লি সফরের সময় ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে সাতটি চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে। বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বিবিসি বাংলাকে বলেন, "যে চুক্তিগুলো হয়েছে সেগুলো সম্পর্কে জাতিকে স্পষ্ট করে কিছু জানানো হয়নি।"

তিনি বলেন ফেনী নদীর পানি, সমুদ্রে রেডার স্থাপন এবং ভারতে এলপি গ্যাস রপ্তানি কিসের ভিত্তিতে করা হবে সেটি কেউ জানেনা।

বিদেশের সাথে কোন চুক্তি করা হলে বাংলাদেশের সংবিধান অনুযায়ী সেটি সংসদে উত্থাপনের করার কথা এবং সেগুলো নিয়ে আলোচনা করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে। এ প্রসঙ্গ টেনে বিএনপি মহাসচিব বলেন, "কিন্তু আমাদের এখানে পার্লামেন্টেও প্লেস করা হয়না এবং সেগুলো জনসম্মুখেও প্রকাশ করা হয়না।"

তিনি উল্লেখ করেন, বিষয়গুলো নিয়ে জনমনে যথেষ্ট প্রশ্ন আছে। বিষয়গুলোর সাথে বাংলাদেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বের প্রশ্ন জড়িত বলে তিনি মনে করেন।

"সেজন্য আমরা স্ট্যান্ডিং কমিটিতে সিদ্ধান্ত নিয়েছি যে বিষয়গুলো স্পষ্ট করে জানানোর জন্য আমরা চিঠি দেব।"

বিএনপি মহাসচিব জানিয়েছেন, যতদ্রুত সম্ভব এই চিঠি পাঠানো হবে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে। তবে এ ব্যাপারে কোন সুনির্দিষ্ট সময়সূচী জানাতে পারেননি তিনি। বর্তমান সংসদে বিএনপির সাতজন সদস্য রয়েছে। বিষয়টি তাদের মাধ্যমে কেন সংসদে উত্থাপন করা হচ্ছে না?

এমন প্রশ্ন মি: আলমগীর বলেন, " সংসদ তো এখন অধিবেশনে নেই। সংসদ অধিবেশনে আসতে এখনো দেরি আছে। বিষয়টা যেহেতু জনমনে সম্প্রতি অনেক প্রশ্নের সৃষ্টি করেছে সে কারণে আমরা এভাবে চিঠি দেবার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।"

আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে যদি বলা হয় যে ক্ষমতায় থাকার সময় বিএনপিও বিভিন্ন দেশের সাথে চুক্তি করেছে এবং তখনও বিষয়গুলো কাউকে জানানো হয়নি।

যদি এমন প্রশ্ন তোলা হয় তখন বিএনপি কী বলবে?

জবাবে মি: আলমগীর বলেন, " কী করেছিলাম, না করেছিলাম, অতীতচারিতা করে তো লাভ নেই। যারা সরকারে থাকে তাদেরকেই জবাবটা দিতে হবে। আমরা যখন সরকারে ছিলাম, তখন যদি আমাদের প্রশ্ন করা হতো, আমরা তখন উত্তর দিতাম। " -বিবিসি বাংলা