'মৃত্যুর পর লোকজন বলে ইস্ লোকটা চলে গেলো'

১৯ অক্টোবর ২০১৯


'মৃত্যুর পর লোকজন বলে ইস্ লোকটা চলে গেলো'

নারায়ণগঞ্জ-৪ আসেনর সংসদ সদস্য শামীম ওসমান বলেছেন, মুক্তিযোদ্ধারা তাদের জন্য নয়, দেশের জন্য যুদ্ধ করেছেন। পৃথিবী সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। আমাদেরকেও এগিয়ে যেতে হবে। বুয়েটের ঘটনা মেনে নিতে পারছি না। যখন ঐ ২০টা ছেলের ফাঁসি হবে ওটাও মেনে নিতে পারছি না। ওদের বাবা-মায়ের কি হবে? ওরাও বেষ্ট ছাত্র ছিলো। 

তিনি বলেন, আমি এখন দোয়া পাওয়ার জন্য রাজনীতি করি। অন্য কিছুর জন্য করিনা। যেন মৃত্যুর পর লোকজন বলে ইস্। লোকটা চলে গেলো। শনিবার (১৯ অক্টোবর) বিকালে সিদ্ধিরগঞ্জের জালকুড়ি হাই স্কুল এন্ড কলেজের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরষ্কার বিতরন ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। 

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্য করে শামীম ওসমান আরো বলেন, তোমার মা-বাবা তোমাকে নিয়ে যে স্বপ্ন দেখেন, আল্লাহ সুবহানাতায়ালা যাতে স্বপ্নটা পূরণ করেন তোমার মাধ্যমে। তুমি এতটুকু উপরে যাও যেন তোমাকে নিয়ে আমরা গর্ব করতে পারি। যেন আমি বা আমরা বলতে পারি আমার এলাকার সন্তান অনেক উচু জায়গায় গেছে, দেশের সম্মান বৃদ্ধি পেয়েছে। 

জালকুড়ি হাই স্কুল এন্ড কলেজে গভর্নিং বডির সভাপতি এস এম কামাল হোসেনের সভাপতিত্বে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা শিক্ষা অফিসার শরিফুল ইসলাম, শিক্ষা প্রকৌশলী অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী মেনহাজুল হক, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি মজিবুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক হাজী ইয়াছিন মিয়া, নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের সদস্য বদিউজ্জামান বদু, নাসিক ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ইস্রাফিল প্রধান, জেলা কৃষকলীগের যুগ্ম সম্পাদক সামছুল আলম বাচ্চু, জালকুড়ি হাই স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ এনায়েত হোসেন, আব্দুল খালেক প্রধান, জাকির হোসেন, মোহাম্মদ জাহাঙ্গির ও আফাজউদ্দিন প্রমুখ।