ছাত্রদলের ১২ ‘বিদ্রোহী’ নেতাকে বহিষ্কার

২৩ জুন ২০১৯


ছাত্রদলের ১২ ‘বিদ্রোহী’ নেতাকে বহিষ্কার

ছাত্রদলের সদ্য বিলুপ্ত কেন্দ্রীয় কমিটির ১২ জন ‘বিদ্রোহী’ নেতাকে বহিষ্কার করেছে বিএনপি। দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে গতকাল শনিবার গভীর রাতে এ খবর জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয় বহিষ্কৃত এ ১২ নেতাকে দলের প্রাথমিক সদস্য পদসহ সকল পর্যায়ের পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

বহিষ্কৃতরা হলেন- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক বাশার সিদ্দিকি, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি জহির উদ্দিন তুহিন, কেন্দ্রীয় সাবেক সহসভাপতি সংসদ এজমল হোসেন পাইলট, ইকতিয়ার কবির, জয়দেব জয়, মামুন বিল্লাহ, সাবেক যুগ্ম সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ, বায়েজিদ আরেফিন, সাবেক সহসাধারণ সম্পাদক দবির উদ্দিন তুষার, সাবেক সহসাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম আজম সৈকত, আব্দুল মালেক ও সাবেক কেন্দ্রীয় সদস্য আজীম পাটোয়ারী।

বয়সসীমা না রেখে ধারাবাহিক কমিটি গঠনের দাবিতে সংবাদ সম্মেলনের ১২ ঘণ্টা না পেরুতেই বহিষ্কারের এ ঘোষণা এলো। ছাত্রদলের সদ্য বিলুপ্ত কমিটির আন্দোলনকারী এই নেতারা গতকাল শনিবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলন করে অন্তত ৬ মাসের জন্য ছাত্রদলের নিয়মিত কমিটির দাবি জানান। অন্যথায় কঠোর কর্মসূচিরও হুমকি দেন তারা। এর আগে দাবি মেনে নিতে আল্টিমেটামও দিয়েছিলেন ছাত্রদল নেতারা। আজ রবিবার নতুন করে মাঠে নামার ঘোষণাও রয়েছে তাদের। ছাত্রদল নেতারা ধারণা করেছিলেন, তাদের দাবি মানতেই গতকাল শনিবার রাতে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সভা ডাকা হয়েছে। সভায় তাদের বিরুদ্ধে যে বহিষ্কারের খড়গ নেমে আসবে তা আঁচ করতে পারেননি সদ্য বহিষ্কৃতরা।

বয়সসীমা না রেখে ধারাবাহিক কমিটি গঠনের দাবিতে গত ১১ জুন বিএনপির নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে তালা দেয়া ছাড়াও ভবনের বিদ্যুৎ ও পানির সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন সদ্য বিলুপ্ত ছাত্রদল কমিটির নেতাকর্মীরা। তারা অবস্থায় নেন দলটির কার্যালয়ের নিচের একটি রুমে। ২৪ ঘণ্টার মধ্যে এই সংকটের সমাধান দেয়া হবে, সার্চ কমিটির নেতাদের এমন আশ্বাসে ওই দিন রাতে কার্যালয়ের তালা খুলে দেন ছাত্রদল নেতারা। কিন্তু দাবি মেনে না নেয়ায় গত ১৩ জুন থেকে প্রতিদিন সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত নয়াপল্টন বিএনপি কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করে আসছেন তারা। গত ২০ জুন বৃহস্পতিবার দাবি মেনে নিতে বিএনপিকে দুই দিনের আল্টিমেটাম দেন ছাত্রদল নেতারা। ওই আল্টিমেটাম শেষে গতকাল শনিবার সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে ৬ মাসের ধারাবাহিক কমিটি করার দাবি জানান তারা।

এ ছাড়া গতকাল তারা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীকে কার্যালয়ে প্রবেশ করতে বাধা দেন। তাদের বাধার মুখে আইনজীবীদের নিয়ে রিজভীর পূর্ব নির্ধারিত মিছিল কর্মসূচি ব্যাহত হয়। এ ছাড়া তারা রিজভীর সঙ্গে দুর্ব্যবহারও করেন। এ সময় রিজভীর বিরুদ্ধে নানান স্লোগানও দেয়া হয়।

উল্লেখ্য, ছাত্রদলের নতুন কমিটি গঠনের লক্ষ্যে ইতোমধ্যেই সংগঠনটির সাবেক নেতাদের দিয়ে সার্চ কমিটি করে দিয়েছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদুর নেতৃত্বে কমিটিতে আছেন খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমানউল্লাহ আমান, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, বিএনপির বিশেষ সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন, বিএনপির তথ্যবিষয়ক সম্পাদক আজিজুল বারী হেলাল, প্রশিক্ষণবিষয়ক সম্পাদক এ বি এম মোশাররফ হোসেন, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, সহপ্রচার সম্পাদক আমিরুল ইসলাম খান আলিম, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবু, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েল, ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রশীদ হাবিব, ছাত্রদলের বিলুপ্ত কমিটির সভাপতি রাজিব আহসান ও সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান।