খুলনার আওয়ামীলীগ অফিসে একটি বোমা হামলার দায় স্বীকার করলো আইএস

১ অক্টোবর ২০১৯


খুলনার আওয়ামীলীগ অফিসে একটি বোমা হামলার দায় স্বীকার করলো আইএস

বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর খুলনায় সোমবার সন্ধ্যায় একটি ছোটখাটো বোমা বিষ্ফোরণের দায় স্বীকার করেছে তথাকথিত ইসলামিক স্টেট জঙ্গি গোষ্ঠি, যেটি আইএস নামে সমধিক পরিচিত। বিশ্বব্যাপী সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলোর কার্যক্রম পর্যবেক্ষণকারী মার্কিন সংস্থা সাইট ইন্টেলিজেন্স এক টুইট বার্তায় এই তথ্য জানিয়েছে। তবে এই দাবির সত্যতা যাচাই করা সম্ভব হয়নি।

খুলনার ফুলতলা থানার ওসি খান জাহান আলী বিবিসিকে বলেন, সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে স্থানীয় শিরোমনি এলাকায় সরকারি দল আওয়ামী লীগের একটি কার্যালয়ে এই বিষ্ফোরণটি ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে দুই কিলোমিটারেরও কম দূরত্বে সেনাবাহিনীর একটি ঘাঁটি রয়েছে। এই বিষ্ফোরণে অবশ্য তেমন কোন ক্ষয়ক্ষতি হয়নি, হতাহতের কোন ঘটনাও ঘটেনি, জানাচ্ছে পুলিশ।

ঘটনার পরপরই বিষ্ফোরক বিশেষজ্ঞ দল সেখানে গিয়ে আলামত সংগ্রহ করে। এখন পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে, বোমাটির প্রকৃতি কেমন ছিল। তবে ঘটনাস্থল ঘুরে এসে স্থানীয় সাংবাদিকেরা জানাচ্ছেন, বোমাটি ছিল খুবই স্বল্প শক্তির। স্থানীয় এক প্রত্যক্ষদর্শীর বরাতে ফুলতলা থানার ওসি জানাচ্ছেন, আনুমানিক ৩০/৩২ বছর বয়সী এক এক ব্যক্তি বাজারের ব্যাগে করে বোমাটি আওয়ামীলীগ কার্যালয়ের মূল ফটকের সামনে রেখে পালিয়ে যায়। এর কিছুক্ষণ পর বিকট শব্দে বোমাটি বিস্ফোরিত হয়।

কে বা কারা এ হামলার সঙ্গে জড়িত তা খতিয়ে দেখতে তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। তারা এখন পর্যন্ত সন্দেহভাজন কাউকে চিহ্নিত করতে পারেননি। কেউ হামলার দায় স্বীকার করেনি বলে পুলিশ দাবি করলেও কিছুক্ষণের মধ্যেই আইএস'এর দায় স্বীকার করা ওই টুইটটি প্রকাশ করে সাইট ইন্টেলিজেন্স।

এদিকে, বোমা বিস্ফোরণের এই ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে দ্রুত তদন্তের দাবি জানিয়েছেন স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। সংগঠনের নেতা-কর্মীরা খুলনা-যশোর শিরোমণি এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল করেছে বলেও জানান স্থানীয় এক সাংবাদিক।

এর আগে ৩১শে অগাস্ট ঢাকার সায়েন্স ল্যাবরেটরি এলাকার পুলিশ বক্সের সামনে চালানো ককটেল হামলার দায় স্বীকার করেছিল আইএস। ২৩ জুলাই রাতে রাজধানীর পল্টন ও খামাড়বাড়ি পুলিশ বক্সের কাছে থেকে বোমা উদ্ধার করা হয়। এছাড়া গত ২৯ এপ্রিল গুলিস্তানে ট্রাফিক পুলিশকে লক্ষ্য করে হাতবোমা ছোড়া এবং ২৬ মে মালিবাগে পুলিশের এসবি কার্যালয়ের সামনে পুলিশের একটি পিকআপে বোমা হামলার ঘটনা ঘটে। প্রতিটি ঘটনায় আইএস জড়িত থাকার দায় স্বীকার করে বিবৃতি দিয়েছে।