লোকমানের যে ছবিতে ফেসবুকে ঝড়

৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৯


লোকমানের যে ছবিতে ফেসবুকে ঝড়

অবৈধভাবে ক্যাসিনো ব্যবসা চালানোর অভিযোগে গত ২৫ সেপ্টেম্বর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে আটক হন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) পরিচালক ও মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব লিমিটেডের ডিরেক্টর ইনচার্জ লোকমান হোসেন ভূঁইয়া। বর্তমানে তিনি মাদকবিরোধী আইনে রিমান্ডে আছেন। 

গ্রেফতারের পর থেকে আলোচনার শীর্ষে লোকমান। দেশের ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থার দায়িত্বে থাকায় তার ভূমিকা নিয়ে বিভিন্ন মহলে প্রশ্ন ওঠে। একের পর এক বেরিয়ে আসে নানা অজানা তথ্য।

এমনিভাবেই সম্প্রতি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে আটকের পর এবার খালেদা জিয়ার সঙ্গে লোকমানের একটি ছবি সামাজিক যোযোযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রকাশ পেয়েছে। 

ছবিটিতে দেখা যায়, এক সমাবেশে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মাথার ওপর ছাতা নিয়ে দাঁড়িয়ে আছেন লোকমান। ছবিটি ফেসুবকে প্রকাশ পেলে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। যা নিয়ে চলছে নানা আলোচনা ও সমালোচনা ঝড়।

একটা সময় খেলোয়াড়-কর্মকর্তাদের পদচারণায় মুখর থাকতো রাজধানীর ঐতিহ্যবাহী মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। ক্লাবটিতে রাত-দিন আড্ডায় মশগুল থাকতেন সাবেক খেলোয়াড় ও কর্মকর্তারা। সেই দৃশ্য এখন আর দেখা যায় না। এক লোকমানই ক্লাবটিকে ধ্বংসস্তুপে পরিণত করেছেন। 

কর্মকর্তাদের অন্তর্দ্বন্দ্বে জর্জরিত মোহামেডান ক্লাবে খেলার বদলে জায়গা করে নিয়েছে ক্যাসিনোর বোর্ড, মাদকসহ অবৈধ অনেক কিছুই। যেখান থেকে প্রতিদিন গড়ে ৭০ হাজার টাকা পেতেন লোকমান।

শুধু তাই নয়, তার বিরুদ্ধে বিদেশে অর্থপাচারেরও অভিযোগ রয়েছে। অস্ট্রেলিয়ার এএনজেড ও কমনওয়েলথ ব্যাংকে লোকমানের ৪১ কোটি টাকা গচ্ছিত রয়েছে বলে র‌্যাবের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। এরই প্রেক্ষিতে ইতিমধ্যে লোকমানের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট জব্দ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। 

লোকমান এসব কিছুই করেছেন রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে। দেশের রাজনীতির পরিক্রমায় নিজেকেও পরিবর্তন করেন তিনি। কখনও বিএনপি, কখনওবা আওয়ামী লীগ। তবে ১৯৯১ সালে বিএনপি ক্ষমতায় আসলে ব্রাদার্স ইউনিয়নের সংগঠক হিসেবে আবির্ভাব ঘটে লোকমান হোসেনের।

এমনকি ২০০১ সালে জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতার রুমে টাঙানো বঙ্গবন্ধুর ছবি নামিয়ে ফেলা ও তার ভাঙচুর করেছিলেন এই লোকমান। অথচ সেই ব্যক্তি আওয়ামী লীগ সরকারের আমলেই বিসিবির পরিচালক বনে যান। যা তাকে আঙ্গুল ফুলে কলা গাছ হতে সহায়তা করে।