কোম্পানীগঞ্জে স্পিরিট পানে ৬ জনের মৃত্যু

২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯


কোম্পানীগঞ্জে স্পিরিট পানে ৬ জনের মৃত্যু


নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে স্পিরিট পান করে ছয় জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় একজনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

শুক্রবার সকাল থেকে শনিবার ভোর পর্যন্ত উপজেলার বসুরহাট বাজারের পান বাজার সংলগ্ন রফিক হোমিও হলের স্পিরিট পান করে তাদের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় পুলিশ স্পিরিট বিক্রেতা ডা. জাহিদ উল্লাহ (৬৫) ও তার ছেলে মিজানুর রহমানকে (২৯) আটক করেছে।

নিহতরা হলেন- উপজেলার বসুরহাট পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের ক্ষিরত মহাজন বাড়ির রবি লাল রায় (৫০), ওমর ফারুক লিটন (৫০), মোহাম্মদনগর গ্রামের মহিন উদ্দিন (৪২), বাঁশ বেপারি বাড়ির নূর নবী মানিক (৫০), চর কাঁকড়া ইউয়িনের টেকের বাজার এলাকার মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল খালেক (৫৫) ও সিরাজপুর ইউনিয়নের মতলব মিয়ার বাড়ি সংলগ্ন মো. সবুজ (৬২)।

স্থানীয়দের অভিযোগ, রফিক হোমিও হলের মালিক জায়েদ ও তার ছেলে প্রিয়ম দীর্ঘদিন ধরেই দোকানে স্পিরিটসহ বিভিন্ন নেশা জাতীয় দ্রব্য বিক্রি করে আসছিল।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আরিফুর রহমান বলেন, একাধিক সূত্রে স্পিরিট পানে পাঁচ জনের মৃত্যুর খবর শুনে তাদের বাড়ি পরিদর্শন করেছি। ঘটনাস্থল পরিদর্শনকালে একজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। আরও একজনের লাশ উদ্ধারের চেষ্টা করছে পুলিশ। এর আগে, তিন জনের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। এছাড়া আশঙ্কাজনক অবস্থায় ২ জনকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়। তাদের মধ্যে একজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেওয়ার পথে শনিবার ভোর ৫টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

ওসি জানান, এ ঘটনায় ডা. জাহিদ উল্লাহ ও তার ছেলে মিজানুর রহমানকে আটক করেছে পুলিশ। তদন্ত সাপেক্ষে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।