জিম্বাবুয়েকে হারিয়ে ফাইনালে বাংলাদেশ

১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯


জিম্বাবুয়েকে হারিয়ে ফাইনালে বাংলাদেশ

জিম্বাবুয়েকে ৩৯ রানে হারিয়ে  ত্রিদেশীয় টি-২০ সিরিজের ফাইনাল নিশ্চিত করল স্বাগতিক বাংলাদেশ। সিরিজের চতুর্থ হলেও বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ের উভয় দু’দলের এটি তৃতীয় ম্যাচ ছিল। আজ বুধবার চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়ামে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় শুরু হয় বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে ম্যাচটি। টাইগার বাহিনী ২০ ওভার খেলে সাত উইকেট হারিয়ে ১৭৫ রান সংগ্রহ করে বাংলাদেশ। এর ফলে ১৭৬ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করছে মাসাকাদজা বাহিনী।

বাংলাদেশের দেওয়া ১৭৬ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করছে নামে জিম্বাবুয়ে। জিতার লক্ষ্য নিয়ে খেলতে নেমে শুরুটা ভালো করতে পারেনি মাসাকাদজার দল। আট রানের মাথায় তিন উইকেট হারিয়ে বসে দলটি। মাতুমবদজিকে সঙ্গে নিয়ে এগিয়ে যাওয়া চেষ্টা করেন মাসাকাদজা। কিন্তু তার পথ আটকে দাঁড়ান আমিনুল ইসলাম। ব্যক্তিগত ১১ রানের মাথায় প্রথম ওভারের তৃতীয় বলে মাতুমবদজিকে সাজঘরে ফেরান তিনি। এরপর আবার আঘাত হানেন শফিউল ইসলাম। তার বলে স্টাম্প হারিয়ে সাজঘরে হাঁটেন রায়ান বার্ল। এদিকে বেশি দূর এগোতে পারেননি মাসাকাদজাও। আমিনুলের বলে এলবিডব্লিউয়ের শিকার হন তিনি। 

   খেলতে নেমে ইনিংসের প্রথম ওভারের পঞ্চম বলেই সাজঘেরে ফেরেন ব্রেন্ডন টেইলর। সাইফউদ্দিনের বলে সাকিবের হাতে ক্যাচ দেন তিনি। এরপর ভালো খেলতে পারেননি রেজিস চকভাও। সাকিবের বলে বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন তিনি। তারা দু’জনেই কোনো রান করতে পারেননি। এদিকে শফিউল ইসলামের বলে আফিফ হোসেনের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন শেন উইলিয়ামস। 

ফেরার আগে তিনি দুই রান করেন। শেষ পর্যন্ত ২০ ওভার খেলে ১০উইকেট হারিয়ে ১৩৬ রান সংগ্রহ করেছে জিম্বাবুয়ে। ফলে বাংলাদেশ ৩৯ রানে জয় লাভ করেছে। এর আগে খেলতে নেমে ঝড় তুলেন লিটন দাস। ২২ বল খেলে ৩৮ রান করেন। কিন্তু আর এগোতে পারেননি। এমপোফুর বলে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন তিনি। অন্যদিকে অভিষেক ম্যাচে ভালো করতে পারেননি নাজমুল হোসেন শান্ত। ৯ বল খেলে ১১ রান করে সাজঘরে ফেরেন তিনি। ভালো খেলতে পরেননি সাকিবও। বার্লের বলে উইলিয়ামসের হাতে ক্যাচ দেন তিনি। সাজঘরে ফেরার আগে ১০ রান যোগ করেন সাকিব। ভালো খেলতে থাকা মুশফিক চেষ্টা করে বড় সংগ্রহের দিকে। কিন্তু তিনি ৩২ রান করে মাতুমবদজি বলেন টেইলরের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন। আজকের ম্যাচে ভালো করতে পারেননি আফিফ হোসেন। এমপোফুর বলে টেইলরের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন ৭ রান করা অফিফ। 

ধাক্কা সামলে এগিয়ে যান মাহমুদউল্লাহ। তুলে নেন নিজের অর্ধশত রান। কিন্তু বেশি দূর এগোতে পারেননি তিনি। ৬২ রানের মাথায় সাজঘরে ফেরেন তিনি। খেলতে নেমে মোসাদ্দেক হোসেন ২ রান করে সাজঘরে ফেরেন। অপরাজিত থাকেন সাইফউদ্দিন (৬) এবং আমিনুল ইসলাম (০)। শেষ পর্যন্ত ২০ ওভার খেলে সাত উইকেট হারিয়ে ১৭৫ রান সংগ্রহ করে বাংলাদেশ।