খালেদা জিয়াকে সরকার অন্যায়ভাবে আটকে রেখেছে : ফখরুল

১ সেপ্টেম্বর ২০১৯


খালেদা জিয়াকে সরকার অন্যায়ভাবে আটকে রেখেছে : ফখরুল

যারা একদলীয় বাকশাল গঠন করে মতপ্রকাশের স্বাধীনতা কেড়ে নিয়েছিল তারাই এখন বিরোধী মতকে নিশ্চিহ্ন করার চক্রান্ত করছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। রবিবার সকালে বিএনপির ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে দলটির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের সমাধিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণের পর এমন মন্তব্য করেন তিনি। এসময় বিএনপি মহাসচিব অভিযোগ করে বলেন, খালেদা জিয়াকে বর্তমান সরকার অন্যায়ভাবে আটকে রেখেছে।

সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য জন্য বিএনপির আন্দোলন অব্যাহত থাকবে বলেও জানান মির্জা ফখরুল। এছাড়া সারা দেশে বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালনে বাধা দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। এর আগে সকাল ১০টায় শের-ই-বাংলা নগরে জিয়ার সমাধিতে যান বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ দলের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ ও কয়েক হাজার নেতাকর্মী।

তারা দলের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। এরপর মাজার প্রাঙ্গণে দোয়া ও মোনাজাত করেন।

দোয়া মোনাজাতে প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করা হয়। দেশ ও জাতির শান্তি, দলীয় চেয়ারপারসন কারাবন্দি খালেদা জিয়ার সুস্বাস্থ্য কামনা করেও দোয়া করা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান ও আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান মো. শাহাজাহান, ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন, অ্যাডভোকেট আহমেদ আযম খান, মীর নাসির উদ্দিন ও শাহজাহান ওমর বীর উত্তম, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবদিন ফারুক ও ডা. সিরাজউদ্দীন আহমেদ, যুগ্ম-মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, হাবিব উন নবী খান সোহেল ও খায়রুল কবির খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালকুদার দুলু, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি প্রমুখ।