‘মাথায় পাড়া দেয়ার পর যা শিখাইছে তাই বলছি’

৩১ আগস্ট ২০১৯


‘মাথায় পাড়া দেয়ার পর যা শিখাইছে তাই বলছি’

পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র আবু সাঈদকে অপহরণ মামলায় ২০১৪ সালে ৪ জনকে গ্রেফতার করে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। জিজ্ঞাসাবাদের পর আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে চারজন বলেন, শিশুটিকে বরিশালগামী লঞ্চ থেকে নদীতে ফেলে তারা হত্যা করেছেন। তবে ৫ বছর পর সেই অপহৃত আবু সাঈদকে জীবিত আটক করেছে পুলিশ। তার বাবা-মাকেও আটক করা হয়েছে। খবর সময় টিভি অনলাইন'র।

আবু সাঈদ হত্যা মামলার আসামিদের দাবি, আটকের পর তাদেরকে পিটিয়ে তাদের কাছ থেকে জোরপূর্বক স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী আদায় করা হয়েছে। শিখিয়ে দেয়া হয়েছে কি কি বলতে হবে।

ভুক্তভোগী সাইফুল বলেন, ' প্রথমে চোখ বেঁধে পিটাইছে তবুও আমি স্বীকার করিনি। পরে আমাকে মাটিতে ফেলে পাড়াইছে। মাথায় পাড়া দেয়ার পর ব্যথায় যা শিখাইছে আমি তাই বলছি।

অপহৃত আবু সাঈদ বলেন, হাজারীবাগ থেকে বাসে উঠে গাবতলী ও পরে নবীনগর যাই। সেখান থেকে যাই শ্রীপুর। সেখানে গাড়ির হেলপারী করতাম আমি। বাবা-মার কথা মনে পড়ায় বাসায় চলে আসছি।

আসামিপক্ষের আইনজীবী ওয়াহিদুজ্জামান বলেন, আদালতে আমি রোববার জানাব, ভিকটিমকে পাওয়া গেছে। এ মামলা সম্পূর্ণ সাজানো। এতে জড়িত ব্যক্তিদের যেন সাজা দেয়া হয়। হাজারীবাগ থানার ওসি ইকরাম আলী বলেন, এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।