দুপুরে আটক, রাতে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ শীর্ষ সন্ত্রাসী মিঠুন নিহত

৩১ আগস্ট ২০১৯


দুপুরে আটক, রাতে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ শীর্ষ সন্ত্রাসী মিঠুন নিহত

নরসিংদীর মাধবদীতে গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ আওলাদ হোসেন মিঠুন (৩৫) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন।  শুক্রবার দিবাগত মধ্যরাতে মাধবদী শহরের টাটাপাড়া মহল্লার একটি বালুর মাঠে এ ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনা ঘটে। এসময় অস্ত্রসহ মিঠুনের তিন সহযোগীকে আটক করা হয়েছে। নিহত মিঠুন মাধবদী থানার টাটাপাড়া মহল্লার জাকির হোসেনের ছেলে।

পুলিশের দাবি, নিহত মিঠুন চিহ্নিত মাদক ও অস্ত্র বিক্রেতা। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় হত্যা, অস্ত্র, বিস্ফোরক ও মাদকসহ এক ডজনেরও বেশি মামলা রয়েছে। আটকরা হলেন একই এলাকার দুলাল মিয়ার ছেলে হৃদয় মিয়া (২২), জহিরুল ইসলামের ছেলে মাইনুল ইসলাম (২৪) ও হারুন রশিদের ছেলে মেহেদী হাসান (২৫)।

নরসিংদী জেলা গোয়েন্দা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুল গাফফার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, শুক্রবার দুপুরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মিঠুনকে তার সহযোগী সোহেলসহ নারায়ণগঞ্জের কাঞ্চন এলাকা থেকে আটক করা হয়। তার দেয়া তথ্যমতে রাতে তাকে সঙ্গে নিয়ে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারের জন্য টাটাপাড়ায় অভিযানে যায় ডিবি পুলিশ। এ সময় আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা মিঠুনের সহযোগীরা পুলিশের ওপর অতর্কিত গুলি চালায়। পুলিশও পাল্টা গুলি ছুড়লে বেশ কয়েকজন পালিয়ে যায়। একইসঙ্গে সহযোগী সন্ত্রাসীদের ছোড়া গুলিতে মিঠুন গুলিবিদ্ধ হন। পরে তাকে নরসিংদী জেলা হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি আরও বলেন, এ ঘটনায় গোয়েন্দা পুলিশের দুই সদস্য আহত হয়েছেন। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে দুটি বিদেশি পিস্তল, একটি পাইপগান ও আট রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়েছে।