বৃহঃস্পতিবার | ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ | টরন্টো | কানাডা |

Breaking News:

  • অন্টারিওতে আক্রান্তের সংখ্যা অস্বাভাবিক বেড়ে যেতে পারে
  • সংক্রমণের চতুর্থ ঢেউয়ের আশঙ্কা
আমি এবং সে

: ১১ সেপ্টেম্বর ২০২১ | তাসরীনা শিখা |

আমার দুই প্রিয়জন

তবে আমি এবং সে একটা জিনিষ খুব ভালোবাসি, সেটা হোল দুজন একসাথে বসে গান শোনা । এই জায়গাটিতে আমাদের ভালোবাসার গড়াগড়ি ।

তারপরও বলতে হবে ভালোবাসার গড়াগড়ি যতই থাকুন না কেনো, তাই বলে কি আমাদের মাঝে পছন্দ অপছন্দের ব্যাপার থাকবে না?  অবশ্যই আছে। পৃথিবীর সব মানুষ কি একই ধরনের পছন্দ অপছন্দ নিয়ে জন্মগ্রহন করে ? মোটেও না। এইতো দেখুন না…।

আমি মাছ খেতে ভালোবাসি না। কখনোই বাসতাম না। খুব পছন্দের গন্ধহীন কোন মাছ যদি হয় তাহলে খাই । সেটাও শিখেছি বিয়ের পর তার কাছ থেকে। কিন্তু সে ভালোবাসে মাছ খেতে। মাছ ছাড়া তার খাবারে কোন তৃপ্তি মেলে না। সে জন্য আমি প্রতিদিনই পছন্দ না করলেও টেবিলে মাছের  তরকারি সাজাই। সেও করে আমার জন্য, আমি পাকা পেঁপে খেতে ভালোবাসি বলে বাজার থেকে খুঁজে খুঁজে পাকা পেঁপে কিনে আনে ।  ছুটির দিনে তার চিন্তা আমি কি রান্না করবো , আমার পছন্দের খাবার কি হবে । হয়তো বলতে লজ্জা পায় তার পছন্দের খাবার কি হবে? এতে আমি কিছু মনে করি না।  আমি জানি ও  কি খেতে পছন্দ করে। রান্না বান্না সে ভাবেই হয়। আমার প্রতি তার ভালোবাসা ও যত্নের অভাব কোন দিনই নেই।

এতো সব কিছু ভালো  বললেও এটাও বলতে হবে সে আমার সাথে স্বামীর সাথে সাথে শিক্ষকের  ভুমিকা পালন করেছে বেশী । তার ধারনা ছিলো আমি হয়তো অনেক কিছুই বুঝি না। সেটা বোধয় সে নিজে একজন শিক্ষক এবং আমার চাইতে বয়েসে কিছুটা বড় বলেই ভাবতো । সে ব্যাপার গুলোতে আমি অনেক  সময়  অপমানিত বোধ করেছি। তারপরও আমি মানিয়ে নেবার চেষ্টা করেছি। এটা করবে না, সেটা করবে না, এভাবে কথা বলতে হয় না, এভাবে চলতে হয় না। তার এসব কথাগুলো যে আমার খুব ভালো লাগতো সেটা মোটেও না। রাগে গা  জ্বলে যেতো। মনে হতো সে একজন  ভীষণ কুটিল স্বভাবের মানুষ। সর্ব উচ্চ   ডিগ্রী নিয়েছে, শিক্ষক হয়েছে কিন্তু মনের উদারতা এক ফোটাও বাড়ে নি। সে নিজেকে সংসার   রাজত্বের রাজা ভেবেছে। কাজেই সে যে ভাবে চাইবে আমাকে সে ভাবেই চলতে হবে । রাজার নিষেধ অমান্য করার সাহস কোথায় আমার?  তাই বলে কিন্তু আমাদের ভালোবাসা এক ফোঁটাও কমেনি।

আমরা দুজন দুজনকে ভালোবেসেই চলেছি ।

আমি যখন মঞ্চে দাড়িয়ে না দেখে নিজের লেখা কবিতা পড়ি কিংবা আয়োজকদের আনুরোধে মন থেকে তৎক্ষণাৎ একটা গল্প বলে শুনাই, তখন আমি মঞ্চ থেকে দেখতে পাই তার চেহারা  টেনসানে শুকিয়ে আছে যদি আমি মাঝ পথে ভুলে যাই সে  ভেবে। কিন্তু যখন আমি সব কিছু ঠিকঠাক বলে মঞ্চ থেকে নেমে আসি তখন তার চোখে মুখে আনন্দ উছলে পড়ে । আমার পিঠে হাত দিয়ে বলে খুব ভালো বলেছো । তখন আমার মনে হয় এর নামই বুঝি ভালোবাসা ।

ম্যাল্টন, কানাডা



[email protected] Weekly Bengali Times

-->