বৃহঃস্পতিবার | ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ | টরন্টো | কানাডা |

Breaking News:

  • অন্টারিওতে আক্রান্তের সংখ্যা অস্বাভাবিক বেড়ে যেতে পারে
  • সংক্রমণের চতুর্থ ঢেউয়ের আশঙ্কা
কানাডার রাজনীতি এবং প্রেক্ষাপট

: ১১ সেপ্টেম্বর ২০২১ | আব্দুল হালিম মিয়া |

নির্বাচনী প্রচারণায় কনজারভেটিভ পার্টি প্রধান এরিন ওটুল

কানাডার কোন জনপ্রিয় নেতার যদি মৃত্যু ঘটে, তাহলেও কিন্তু তার লাশ কানাডার রাজধানী অটোয়ার সংসদ ভবনের পাশে কিংবা বাণিজ্যিক রাজধানী টরন্টোর বিখ্যাত ডানডাস স্কয়ারের পাশে দাফন করার সুযোগ নেই। যে কোন সিমিটারী বা গোরস্হানেই সমাহিত হবেন কানাডার সেই জনপ্রিয় নেতা। খ্যাত বা অখ্যাত সকলকেই যেতে হবে পৌরসভার নির্ধারিত লাশ সমাহিত করার সিমিটারীতে বা গোরস্হানে।

এবার আসুন দেখি সমস্যা কিভাবে তৈরী হয়। আজ জাষ্টিন ট্রুডো বা লিবারেল পার্টি ক্ষমতায়। তারা যদি ক্ষমতার অবৈধ প্রভাব খাটিয়ে (বৈধ প্রভাব খাটানোর কোন সুযোগ নেই) তাদের কোন নেতার লাশ টরন্টোর ডানডাস স্কোয়ারে সমাহিত করেন, তাহলে কি হবে?

দুটো জিনিষ পরিলক্ষিত হবে। প্রথমত তারা সরকার নির্ধারিত যে কোন লাশের সমাহিত করার জায়গা বাদ দিয়ে কেন ডানডাস স্কোয়ারে করবেন? উদ্দেশ্য পরিস্কার, যুগ যুগ ধরে রাজনৈতিক অনৈতিক ফায়দা হাসিল করা। দ্বিতীয়ত যখনই একটি দল এরকম ফায়দা নিতে সচেষ্ট হবেন, তাতে ক্ষতিগ্রস্ত হবে প্রতিপক্ষ রাজনৈতিক দল কনজারভেটিভ পার্টি। ফলে তারা যেটা করবেন সেটা হলো তারা ক্রমাগত নিন্দা করবেন সিমিটারী বাদ দিয়ে ডানডাস স্কোয়ারে অপর দলের নেতার লাশ সমাহিত করার। চেষ্টা করবেন তাদের নিজেদের নেতাদের লাশও তার চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কোন স্হানে সমাহিত করার। আরো চেষ্টা করবেন বলতে যে ডানডাস স্কোয়ারে লিবারেল পার্টির নেতার লাশ আদৌ আছে কিনা সন্দেহ! চেষ্টা করবেন সেখান থেকে সেই কবর উচ্ছেদ করার প্রাণান্তকর ঘ্যাণা প্যাঁচাল। শুরু হবে ক্যাওয়াজ, সামাজিক ও রাজনৈতিক অনন্তকালের দ্বন্দ!

অতএব বলা যায় যখনই সমাজে কেউ আইনের ব্যত্যয় ঘটিয়ে কোন কাজ করেন, সেখান থেকেই শুরু হয় সকল সমস্যা।

আইনের শাসন মানে সকল দল ও মানুষের জন্য আইনের সমান প্রয়োগ। তা সে যত বড় মহান বা ক্ষুদ্র কেউ হন না কেন!

স্কারবোরো, কানাডা


[email protected] Weekly Bengali Times

-->