উত্তর আমেরিকার প্রতিরক্ষায় কানাডিয়ান বিনিয়োগের সুবিধাভোগী ইউরোপও

- Advertisement -
ফাইল ছবি

কানাডা যখন উত্তর আমেরিকা ও কানাডিয়ান আর্কটিকের প্রতিরক্ষায় বিনিয়োগ করে, তখন ইউরোপীয় মিত্ররাও এর সুফলভোগী হয়। ইউরোপীয় মিত্রদের এ কথাই জানিয়েছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো।

আলবার্টার কোল্ড লেকে রয়্যাল কানাডিয়ান এয়ার ফোর্সের ঘাঁটিতে এক সংবাদ সম্মেলনে এ মন্তব্য করেন ট্রুডো। ন্যাটো মহাসচিব জেন্স স্টোল্টেনবার্গের সফরশেষে সংবাদ সম্মেলনটির আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে ট্রুডো কানাডায় এ সংক্রান্ত বিনিয়োগ ও কর্মকা-ের কিছু চিত্র তুলে ধরেন। সেই সঙ্গে ইউরোপের জন্য কানাডার কাজের অংশগুলোও তুলে ধরেন।
এর মধ্যে রয়েছে নতুন ফাইটার জেট ক্রয় এবং ওয়াশিংটনের সঙ্গে পুরনো নোরাড আর্লি-ওয়ার্নিং সতর্কতা ব্যবস্থার আধুনিকায়নসহ নতুন সামরিক সরঞ্জাম ক্রয় ও সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য কয়েক বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগের প্রতিশ্রুতি। জাস্টিন ট্রুডো বলেন, কানাডা সম্প্রতি আমাদের নোরাড সক্ষমতা আধুনিকায়নে বড় ধরনের বিনিয়োগের ঘোষণা দিয়েছে। এটা ন্যাটোর উত্তর ও পশ্চিম অংশের সক্ষমতা বৃদ্ধিতে সহায়ক হবে।

রাশিয়ার ইউক্রেন আক্রমণের ফলে উদ্ভুত উদ্বেগ এবং তাপমাত্রা বৃদ্ধির ফলে সহিংসতাপ্রবণ আর্কটিক অঞ্চল উন্মুক্ত হয়ে পড়ার পরিপ্রেক্ষিতে এই ঘোষণা এলো। একইসঙ্গে ন্যাটোর সদস্য দেশগুলোর মোট দেশজ উৎপাদনের ২ শতাংশ প্রতিরক্ষায় বরাদ্দের ব্যাপারে ন্যাটোর যে লক্ষ্যমাত্রা, তা পূরণে কানাডার অস্বীকৃতির মধ্যেই ট্রুডো এ মন্তব্য করলেন। কানাডা দীর্ঘদিন ধরেই বলে আসছে ট্রান্সআটলানটিক সামরিক জোটটির প্রতিশ্রুতি পূরণে বিদেশে ন্যাটোর কার্যক্রমে বিভিন্ন ধরনের অবদান রাখছে দেশটি। ইউক্রেন যুদ্ধের পর সেনা, ফাইটার জেট ও যুদ্ধবিমান মোতায়েন এর মধ্যে অন্যতম। তবে কানাডা তাদের দেশের কাছাকাছি যা করছে তারও স্বীকৃতি দেওয়া মিত্রদের উচিত বলে মনে করেন ট্রুডো।

তিনি বলেন, রাশিয়া নিয়ে উদ্বেগ বাড়ছে। এই বোঝাপড়া থেকেই নোরাডের মধ্য দিয়ে কানাডা যা করছে মহাসচিব ও ন্যাটোকে তা জানানোর এটা সঠিক সময় বলে মনে হয়েছে। তবে স্বাধীনভাবে এই অঞ্চলের নিরাপত্তা নিশ্চিতেও কাজ করছি আমরা। উত্তর আমেরিকার প্রতিরক্ষায় নেতৃত্ব প্রদান আমরা অব্যাহত রাখবো। ন্যাটো সদস্য হিসেবে মহাসচিবকে কানাডায় আমান্ত্রণ জানানো এবং এ অঞ্চলের সুরক্ষায় ন্যাটো সদস্য হিসেবে আমরা কী করছি তা তুলে ধরা অবশ্যই প্রাসঙ্গিক।

সফরের অংশ হিসেবে স্টোল্টেনবার্গ নুনাভাটে কানাডিয়ান সশস্ত্র বাহিনীর আর্কটিক মহড়ায় অংশ নেওয়া সৈন্যদের সঙ্গে বৈঠক করেন। সেই সঙ্গে নোরাডে কানাডার অবদানের মেরুদন্ড একটি রাডার সাইটও ঘুরে দেখেন তিনি। সোভিয়েত হামলার ব্যাপারে আগাম তথ্য পেতে ১৯৮০ এর দশকে এটি নির্মাণ করা হয়।

Exit mobile version