পাঁচ কোটি গ্রাহকের অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়েছিল: ফেসবুক
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক শুক্রবার জানিয়েছে, একটি নিরাপত্তা ইস্যুর সুযোগ নিয়ে তাদের সিস্টেম হ্যাকড করা হয়েছিল। এর ফলে পাঁচ কোটি ফেসবুক ব্যবহারকারীর অ্যাকাউন্ট ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। খবর বিজনেস ইনসাইডার, সিএনএনের। মঙ্গলবার ফেসবুকের ওই ত্রুটি ধরা পড়ে, যেটি ব্যবহার করে হ্যাকাররা ফেসবুক ব্যবহারকারীদের অ্যাকাউন্ট নিয়ন্ত্রণে নেয়। এদিকে ফেসবুকের গ্রাহকদের অ্যাকাউন্ট হ্যাকড হবার খবরে প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারদর তিন শতাংশ পড়ে গেছে। হ্যাকাররা গ্রাহকদের অ্যাকাউন্ট নিয়ন্ত্রণে নিয়ে অ্যাকাউন্ট হোল্ডারের মতো করেই সেটি ব্যবহার করেছে। এর ফলে তারা পোস্ট করার অ্যাকসেস এবং ওই অ্যাকাউন্ট হোল্ডারের শেয়ার করা তথ্য দেখতে পেয়েছে।

ফেসবুক জানিয়েছে, নয় কোটির বেশি গ্রাহকের অ্যাকাউন্ট জোরপূর্বক লগ আউট করতে বাধ্য হয়েছেন তারা এবং নিরাপত্তার কারণে শুক্রবার পুনরায় লগ ইন করতে হয়েছে। প্রতিষ্ঠানটি জানাচ্ছে, জোরপূর্বক লগ আউট করা ওই নয় কোটি অ্যাকাউন্টের মধ্যে ফেসবুকের সিইও মার্ক জাকারবার্গ এবং চিফ অপারেটিং অফিসার শেরিল স্যান্ডবার্গের অ্যাকাউন্টও রয়েছে।

ফেসবুক বলছে, গ্রাহকদের বাড়তি নিরাপত্তা সতর্কতা বা তাদের পাসওয়ার্ড রিসেট করার প্রয়োজন নেই। তারা জানাচ্ছে, যেসব অ্যাকাউন্ট লগ আউট হয়ে গিয়েছিল তারা এই ইস্যু সম্পর্কে ফেসবুকের কাছ থেকে একটি নোটিফিকেশন পাবে। তবে তারা নয় কোটি গ্রাহকের একজন কিনা তা জানানো হবে না।

ফেসবুকের প্রোডাক্ট ম্যানেজম্যান্টের ভাইস প্রেসিডেন্ট গাই রোসেন অ্যাকাউন্ট হ্যাকার হবার খবর একটি ব্লগ পোস্টে ঘোষণা দেন। তিনি লিখেন, আমাদের তদন্ত এখনও প্রাথমিক পর্যায়ে আছে। তবে এটা স্পষ্ট যে ফেসবুকের কোডিংয়ের দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে এটির ‘ভিউ অ্যাজ’ ফিচারকে কাজে লাগিয়েছে হ্যাকাররা। এর মাধ্যমে তারা ফেসবুকের অ্যাকসেস টোকেন হাতিয়ে নেয় যা কাজে লাগিয়ে তারা ফেসবুক ব্যবহারকারীর অ্যাকাউন্টের নিয়ন্ত্রণে নিয়েছিল।

রোসেন আরও লিখেন, অ্যাকসেসে টোকেন অনেকটা ডিজিটাল চাবির মতো যা একজন ব্যবহারকারীকে ফেসবুকে লগ-ইন করে থাকে। তাই প্রতিবার এই অ্যাপ ব্যবহারের সময় পাসওয়ার্ড দেয়ার প্রয়োজন নেই। তবে কারা এই হামলা চালিয়েছে সেটি স্পষ্ট করে বলতে পারেনি ফেসবুক। তবে তারা জানাচ্ছে, ইতোমধ্যে ওই সমস্যার সমাধান করা হয়েছে এবং এ বিষয়ে এফবিআই এবং অন্যান্য আইন প্রয়োগকারী সংস্থা, এছাড়া আইনপ্রণেতা ও নিয়ন্ত্রক সংস্থাগুলোকে জানানো হয়েছে।

এমনিতেই ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকা ইস্যুতে টালমাটাল ফেসবুক। এরমধ্যে নতুন করে নিরাপত্তা ইস্যু ফেসবুককে হুমকির মুখে ফেলবে বলে মনে করা হচ্ছে। ফেসবুক জানিয়েছে, তারা নিরাপত্তা খাতে আরও বিনিয়োগ করছে এবং নিরাপত্তা খাতে লোক ১০ হাজার থেকে বাড়িয়ে ২০ হাজার করা হবে। এ প্রসঙ্গে জাকারবার্গ বলেন, নিরাপত্তা শক্তির লড়াই এবং আমরা আমাদের প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা আরও উন্নত করছি।

 

২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১০:২১:০২