মেয়ে ভেবে ছেলের প্রেমে হাবুডুবু খেয়েছিলেন আফ্রিদি
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট


পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক শহীদ আফ্রিদি শুধু খেলোয়াড় হিসেবে নয় সুদর্শন হিসেবেও তারা জনপ্রিয়তা আছেন।  কত নারীর কাছ থেকে আফ্রিদি যে বিয়ের প্রস্তাব পেয়েছেন, ভালোবাসার আহ্বান শুনেছেন, তার হিসাব বোধ হয় আফ্রিদির কাছেও নেই।

সেই আফ্রিদির হৃদয়েই ঝড় তুলেছিলেন এক তরুণী। পরে আফ্রিদির হৃদয় খানখান করে দিয়ে চলে গেছেন। কিন্তু কীভাবে? সম্প্রতি প্রকাশিত নিজের আত্মজীবনীতে সেই ঘটনার বিস্তারিত বর্ণনা দিয়েছেন আফ্রিদি।  

আফ্রিদির তখনো বিয়ে হয়নি। দলের উঠতি তারকা তখন। সে সময় এক নারী তাঁর ফোন নম্বর জোগাড় করে আফ্রিদিকে ফোন দেন। আফ্রিদিও সেই নারীর সুমধুর কণ্ঠস্বর শুনে পাগল হয়ে যান। আফ্রিদি বলেন, ‘আমার বিয়ে হয়নি তখনো। একটা মেয়ে হঠাৎ আমাকে নিয়মিত ফোন দেওয়া শুরু করল। তার কণ্ঠস্বর শুনে আমি মন্ত্রমুগ্ধ হয়ে যাই। তখন মোবাইল ফোন সবার হাতে হাতে পৌঁছায়নি, যে কারণে কলরেট ছিল খুব বেশি। তাও আমি শুধুমাত্র সেই মেয়ের কণ্ঠ শোনার জন্য প্রচুর টাকা খরচ করতাম।’

নিয়মিত কথা বলতে বলতে আফ্রিদির সঙ্গে সে নারীর ভালো বন্ধুত্ব হয়ে যায়। দুজন অবশেষে সিদ্ধান্ত নিলেন এবার দেখা করা উচিত। যেই ভাবা সেই কাজ। দেখা করার দিনক্ষণ ঠিক করে সময় মতো সেখানে হাজির হয়েই চক্ষু ছানাবড়া আফ্রিদির! হৃদয় ভেঙে হয়ে যায় খান খান।

আফ্রিদি লিখেছেন, ‘তো আমরা দেখা করার সিদ্ধান্ত নিলাম। নির্দিষ্ট দিনে দরজায় বেল বাজার পর খুলে দেখলাম একগুচ্ছ গোলাপ হাতে একটা ছেলে দাঁড়িয়ে আছে। আমি তখন আমার জীবনের সবচেয়ে বড় ধাক্কাটা পেলাম যখন সে বলল আমার সঙ্গে মেয়ে সেজে মাসের পর মাস আসলে সে-ই কথা বলেছে। আমি প্রচণ্ড কষ্ট পাই। বেশ অসম্মানিতও হয়েছিলাম।"

এ ঘটনার কারণেই কি না, পরে তাড়াতাড়ি বিয়ে করে ফেলেন আফ্রিদি!


০৫ মে, ২০১৯ ১৯:৫৩:০১