মেসির হ্যাটট্রিকে বার্সার অসাধারণ জয়
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
লা লিগায় সেভিয়ার বিপক্ষে বার্সেলোনার জয়ে সবচেয়ে বড় ভুমিকা অধিনায়ক লিওনেল মেসির। তার হ্যাটট্রিকে আন্দালুসিয়ান দলটির বিপক্ষে ৪-২ গোলের বড় ব্যবধানে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে কাতালানরা। লা লিগায় এটি লি‌ওনেল মেসির পঞ্চাশতম হ্যাটট্রিক। লা লিগায় সেভিয়ার বিপক্ষে এই ম্যাচটি ছিল লিওনেল মেসির ৩৫ তম ম্যাচ। পিছিয়ে পড়া বার্সাকে খেলার ২৬ মিনিটে সমতায় ফেরান বার্সার আর্জেন্টাইন তালিসমান লি‌ওনেল মেসি। এটি ছিল সেভিয়ার বিপক্ষে মেসির ৩৪ তম গোল। এরপর দ্বিতীয়ার্ধে তিনি আর‌ও দুই গোল করে ৩৫ ‌ও ৩৬ তম গোল করার পাশাপাশি হ্যাটট্রিক পুরণ করেন। লা লিগায় এটি মেসির হ্যাটট্রিকের হাফ সেঞ্চুরি।

এতে যেকোনো দলের চেয়ে সেভিয়াকে বেশি গোল দে‌ওয়ার রেকর্ড গড়লেন লি‌ওনেল মেসি। তবে সেভিয়ার পরেই বেশি গোল দিয়েছেন মেসি অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদকে।শনিবার সেভিয়ার মাঠে আতিথ্য নেয় বার্সেলোনা। তবে শুরুটা শুভ ছিল না অতিথিদের। কিছুক্ষণ যেতেই গোল খেয়ে বসে তারা। ২২ মিনিটে দুর্দান্ত এক প্রতি-আক্রমণে গোল আদায় করে নেয় স্বাগতিকরা। বেন ইয়েদেরের পাস ধরে কোনাকুনি শটে দূরের পোস্ট ঘেঁষে নিশানাভেদ করেন জেসুস নাভাস।

তবে সেভিয়ার এগিয়ে যাওয়ার আনন্দ বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। ৪ মিনিট পর দুর্দান্ত এক ভলিতে সমতা টানেন মেসি। ইভান রাকিতিচের ক্রস ফাঁকায় পেয়ে বজ্রগতির শটে ক্রসবার ঘেঁষে জালে জড়ান তিনি। এ নিয়ে ২৬ গোল করে স্পেনসেরা লিগে কোনো এক দলের বিপক্ষে সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড নিজের করে নিলেন ছোট ম্যাজিসিয়ান। এতদিন ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর সঙ্গে যৌথভাবে রেকর্ডটির মালিক ছিলেন বার্সা অধিনায়ক। গেল জুলাইয়ে রিয়াল মাদ্রিদ ছেড়ে জুভেন্টাসে ভেড়া সিআর সেভেন সেভিয়ার বিপক্ষে করেন ২৫ গোল।

এরপর আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে জমে উঠে খেলা। তবে ফের এগিয়ে যায় সেভিয়া। ৪২ মিনিটে প্রতিপক্ষের ভুলের সদ্ব্যাবহার করে স্বাগতিকরা। বার্সেলোনা গোলরক্ষকের দুর্বল উঁচু শটে বল পেয়ে যান পাবলো সারাবিয়া। বাইলাইন থেকে কাটব্যাক করে তা পাঠান গাব্রিয়েল মার্কাদোর কাছে। ডি-বক্সের বাইরে থেকে কোনাকুনি শটে বল ঠিকানায় পাঠিয়ে সমর্থকদের উচ্ছ্বাসে ভাসান তিনি। ফলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় ঘরের ছেলেরা।

দ্বিতীয়ার্ধে আক্রমণের ঢেউ তোলে বার্সা। মুহুর্মুহু আক্রমণে প্রতিপক্ষকে কাপিয়ে ছাড়েন মেসিরা। তবে গোলমুখ খুলছিল না। অবশেষে গেরো খুলে ৬৭ মিনিটে। আবারও দলকে সমতায় ফেরানোর নায়ক মেসি। উসমানে ডেম্বেলের বাড়ানো পাস ধরে ডি-বক্সে ঢুকে ডান পায়ের বাঁকানো শটে লক্ষ্যভেদ করেন তিনি।

পরে আরও ভয়ংকর হয়ে ওঠেন মেসি। ছন্দময় ফুটবলে বুঁদ করে রাখেন ভক্তদের। ৭০-৭৫ মিনিটের মধ্যেই হ্যাটট্রিক পেয়ে যেতে পারতেন তিনি। তবে দুর্ভাগ্যবশত পাননি। অবশেষে ৮৫ মিনিটে কাঙ্ক্ষিত হ্যাটট্রিক পান আর্জেন্টাইন জাদুকর। প্রতিপক্ষের এক খেলোয়াড়ের পায়ে লেগে বল পান তিনি। চিপ শটে আগোয়ান গোলরক্ষকের ওপর দিয়ে গোল করেন পাঁচবারের বর্ষসেরা ফুটবলার।

এ নিয়ে চলমান স্প্যানিশ লিগে সর্বোচ্চ গোলদাতার গোল হলো ২৫টি। চলতি মৌসুমে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ৩৩। আর স্পেনের শীর্ষ লিগে এটি তার ৩২তম এবং ক্যারিয়ারে হ্যাটট্রিকের ফিফটি (৫০টি)। ক্লাব ও জাতীয় দল মিলিয়ে ৩১ বছর বয়সী জিনিয়াসের মোট গোল হলো ৬৫০টি।

এতেই ক্ষ্যান্ত থাকেননি মেসি। ইনজুরি টাইমে বন্ধু সুয়ারেজকে উঁচু করে বল বাড়ান তিনি। ডি-বক্সে পেয়ে এগিয়ে আসা গোলরক্ষকের ওপর দিয়ে লক্ষ্যে পাঠিয়ে জয় নিশ্চিত করেন উরুগুইয়ান ফরোয়ার্ড। এ নিয়ে লিগে চার ম্যাচ পর গোলের দেখা পেলেন তিনি। চলতি আসরে তার গোল হলো দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৬টি।

২৫ ম্যাচে ১৭ জয় ও ছয় ড্রয়ে ৫৭ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে বার্সা। এক ম্যাচ কম খেলে ৪৭ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। তৃতীয় স্থানে থাকা রিয়াল মাদ্রিদের পয়েন্ট ৪৫।

 

         

 

 

 

 

 

 

২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০৯:২০:৫৮