বিপিএলের শুরুতে বিতর্ক!
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট


বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ, বাংলাদেশের একটি ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি আসরের ষষ্ঠতম মৌসুমের প্রথম দিন টেলিভিশন দর্শকরা বেশ নাখোশ ছিলেন। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ শুরুর আগে বিপিএল এর গভর্নিং বডি বেশ কিছু আধুনিক প্রযুক্তির কথা বললেও সেসব না থাকার কারণে বেশ ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ক্রিকেট ভক্তরা।

১১৯ বছর বয়সী ক্রিকেটার!

খালিদ আহমেদ, চিটাগং ভাইকিংসের ডান হাতি পেস বোলার। তার নামের পাশে লেখা ছিল বয়স ১১৯। এনিয়ে বেশ হাস্যরস দেখা যায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

এবারের আসরে যাতে আম্পায়ারের সিদ্ধান্তের কারণে নেতিবাচক প্রভাব না পড়ে সেজন্যই এই ব্যবস্থা নিয়েছে বিপিএলের গভর্নিং বডি। তবে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের এই ডিআরএস সিস্টেম কতটা কাজে দেবে সেটা নিয়েই প্রশ্ন উঠেছে।

কারণ এখানে নেই বিশেষ কিছু প্রযুক্তি যা দিয়ে মাঠের আম্পায়ার যদি ভুল করে থাকেন সেটা থার্ড আম্পায়ার সঠিক রুপ দিতে পারতেন। যেমন স্নিকোমিটার, স্নিকোমিটার ব্যাটের ধার দিয়ে ঘেষে যাওয়া বল ব্যাটে আদৌ লেগেছে কি না সেটা নির্ণয় করতে সক্ষম। যা এই বিপিএলে নেই। ফলে সিদ্ধান্ত নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যায় বিপিএল আসরে।

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের স্টিভ স্মিথের আউট আম্পায়ারের যে সিদ্ধান্ত তা নিয়েও বিতর্ক দেখা গিয়েছে। এর আগে ডেভিড ওয়ার্নার আউট ছিলেন কি না সেটা নিয়েও প্রশ্ন ছিল।

এলইডি, লাইট এমিটিং ডায়োড বা আলোক নিঃসারী ডায়োড যা ব্যবহার করা হয়ে থাকে বিশ্বের নামীদামী ক্রিকেট টুর্নামেন্টে। বিশেষত টি-টোয়েন্টি যুগে এটা ব্যবহৃত হচ্ছে বেশি।

এলইডি যে শুধু খেলায় অলঙ্কার হিসেবে ব্যবহৃত হয় তা নয়, রান আউট বা স্ট্যাম্পিংয়ের ক্ষেত্রে ঠিক কোন সময় বেল নড়েছে সেটাও বোঝা যায় এই লাইটের মাধ্যমে। বিপিএল শুরুর আগে এটি থাকার কথা থাকলেও এখনো এর ব্যবহার দেখা যায়নি।

ধারাভাষ্যকার নিয়ে বিতর্ক

অধিকাংশ ধারাভাষ্যকার ক্রিকেটারদের নাম ঠিকমতো উচ্চারণ করতে পারেন না বলে অভিযোগ রয়েছে টেলিভিশন দর্শকদের। এর আগে ড্যানি মরিসনের তুমুল জনপ্রিয়তা থাকলেও এবারের আসরে মরিসনকে না দেখায় হতাশ হয়েছেন দর্শক-শ্রোতারা।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড কী বলছে?

ডিসিশন রিভিউ সিস্টেম নিয়ে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের টেকনিক্যাল কমিটির প্রধান জালাল ইউনুস বলেন, "আল্ট্রা মোশন দিয়ে শুরু করা হয়েছিল, এটার চেয়ে আল্ট্রা এজ টেকনোলজি ভালো, সেটা ইংল্যান্ড থেকে আসছে, আমরা আশা করছি দুই-তিন দিনের মধ্যে সেটা চলে আসবে।"

তবে সম্প্রচার নিয়ে সুনির্দিষ্ট উন্নতির কথা বলেছেন ইউনুস, "প্রায় ৩৪টি ক্যামেরা রয়েছে, সঙ্গে আছে বল ট্র্যাকিং, যাতে দর্শকদের জন্য ভালো হয়।"

তবে ধারাভাষ্যকার নিয়ে সন্তুষ্ট নন জালাল ইউনুস, "ড্যানি মরিসন দুই একদিন পরে আসবে, তবে আমরা বলেছি যারা ধারাভাষ্যকার যারা আছেন আন্তর্জাতিক আরো ভালো ধারাভাষ্যকার আমরা চেয়েছি।"

জালাল ইউনুস জোর দিয়ে বলেছেন, মাঠে যারা খেলা দেখেছেন তাদের চেয়ে অনেক গুরুত্বপূর্ণ টেলিভিশন দর্শক। তাদের জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা করা হচ্ছে সম্প্রচার উন্নত করার। তথ্যসূত্র: বিবিসি বাংলা


০৬ জানুয়ারি, ২০১৯ ২০:২০:৩৬