দলকে ম্যাচ জেতানোর জন্য অবদান রাখতে চাই : আশরাফুল
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম
অ+ অ-প্রিন্ট
২০১৩ সালের বিপিএলে ফিক্সিং করে নিষিদ্ধ হয়েছিলেন মোহাম্মদ আশরাফুল। ৫ বছরের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে গত আগস্টেই মুক্তি মেলে তার। যদিও আরও এক বছর আগে থেকেই ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলার অনুমতি পেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু আন্তর্জাতিক ক্রিকেট এবং ফ্রাঞ্জাইজি ক্রিকেটে ঠিকই নিষিদ্ধ ছিলেন। অবশেষে পুরোপুরি মুক্তি পাওয়ার পরই বিপিএলসহ সব ফ্রাঞ্চাইজি ক্রিকেট এবং জাতীয় দলে ফেরার সব দরজা উন্মুক্ত হয় তার সামনে। সে হিসেবেই বিপিএলের ৬ষ্ঠ আসরের জন্য প্লেয়ার ড্রাফটে নাম ‌ওঠে আশরাফুলের। এবং চিটাগাং ভাইকিংস ১৮ লাখ টাকা কিনে নেয় তাকে। বিপিএলে ‘বি’ ক্যাটাগরিতে ছিলেন মোহাম্মদ আশরাফুল। তবে দুপুর ১২টায় ড্রাফট শুরু হওয়ার পর ৬টি কল হয়ে গিয়েছিল। কোনো ফ্রাঞ্চাইজি আশরাফুলকে কেনার আগ্রহ প্রকাশ করেনি। শেষ পর্যন্ত ৭ম কলে এসে চিটাগাং ভাইকিংস কিনে নেয় বাংলাদেশ দলের সাবেক এই অধিনায়ককে।

সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী ৫ জানুয়ারি থেকে গড়ানো বিপিএলে ব্যাট হাতে তাকে দেখা যাবে মাঠে। বিষয়টিতে ঠিক বিস্মিত তিনি নন, তবে আপ্লুত তিনি। বিপিএলে ভাল পারফর্ম করলেই স্বপ্নের জাতীয় দলে ঢোকার রাস্তাটি প্রশস্ত হবে, এ ভাবনাই চলছে সাবেক এই অধিনায়কের মনে।

আশরাফুল বলেন, ‘ভাল লাগছে। চেষ্টা করবো ভালো কিছু করার। দলকে ম্যাচ জেতানোর জন্য অবদান রাখতে চাই। এই ফরম্যাটটার জন্য আমি অনেকদিন ধরেই অপেক্ষা করছিলাম। এর আগে ঢাকা লিগ, ন্যাশনাল লিগ, বিসিএল খেললাম। আন্তর্জাতিক মানের এই টুর্নামেন্টটা খেলা হয়নি। এখানে বিদেশি খেলোয়াড়রা থাকে, খেলা সম্প্রচার হয়। যেহেতু আমার স্বপ্ন বাংলাদেশ দলে খেলা তাই এখানে ভাল খেললে আমার সেই স্বপ্ন পূরণ হওয়ার সম্ভাবনা থাকবে।’

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বিপিএল ফিক্সিং কেলেঙ্কারিতে জড়ানোয় নিষিদ্ধ আশরাফুলের ওপর দুই বছর আগে ঘরোয়া ক্রিকেট থেকে নিষেধাজ্ঞা উঠে যায়। তবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ও বিপিএলের জন্য তাকে অপেক্ষা করতে হয় চলতি বছরের ১৩ আগস্ট পর্যন্ত।

২৯ অক্টোবর, ২০১৮ ০৬:০৮:০৯