দ্রুতই মাঠে ফিরতে চান সাকিব
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
পুনর্বাসনের মাধ্যমে আঙ্গুলের শক্তি বাড়িয়ে দ্রুতই মাঠে ফিরতে চান বাংলাদেশের টেস্ট ও টি-২০ অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। অস্ট্রেলিয়ায় ডান হাতে আঙ্গুলের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করিয়ে আজ দেশে ফিরেছেন তিনি। বিমান বন্দরে নেমে নিজের আঙ্গুল সম্পর্কে ধারণা দেন সাকিব। তিনি বলেন, ‘চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, আগামী ৬ থেকে ১২ মাস অস্ত্রোপচার করানো যাবে না। তবে অস্ত্রোপচার ছাড়া আবারো মাঠে নামা যাবে। এজন্য পুনর্বাসন অনেক বেশি জরুরি। পুনর্বাসনের উপর নির্ভর করছে মাঠে ফেরা। কিন্তু মাঠে নামলে আবারো সমস্যা দেখা দিলে খেলা বন্ধ রেখে অস্ত্রোপচারের জন্য অপেক্ষা করতে হবে। এখনই কিছু নিশ্চিতভাবে বলা যাচ্ছে না। তবে আপাতত কোন ব্যাথা নেই।’

চলতি বছরের জানুয়ারিতে ঢাকায় ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে আঙ্গুলের ইনজুরিতে পড়েন সাকিব। এরপর দেশের মাটিতে শ্রীলংকার বিপক্ষে টেস্ট ও টি-২০ সিরিজে খেলতে পারেননি তিনি। তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দ্বিপক্ষীয় সিরিজ, নিদাহাস ট্রফি, আফগানিস্তানের বিপক্ষে দ্বিপক্ষীয় টি-২০ সিরিজ এবং এশিয়া কাপে অংশ নেন সাকিব। কিন্তু আঙ্গুলের ইনজুরিটা পুনরায় দেখা দেয়ায় এশিয়া কাপের মাঝপথে টুর্নামেন্ট থেকে নিজেকে সরিয়ে নেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার।

ঢাকায় ফিরে রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হন সাকিব। সেখানে তার আঙ্গুল থেকে পুজ বের করে আনা হয়। এরপর চিকিৎসার জন্য অস্ট্রেলিয়ায় উড়ে যান সাকিব। সেখানে তার আঙ্গুলের সংক্রমণের চিকিৎসা করানো হয়।

অস্ট্রেলিয়ায় চিকিৎসা শেষে নিজের আঙ্গুলের অবস্থা সম্পর্কে জানাতে গিয়ে সাকিব বলেন, ‘অস্ত্রোপচার করানো যাবে না আগামী ৬ থেকে ১২ মাস। ইনফেকশন নিয়ন্ত্রণের মধ্যে আছে। কিন্তু প্রতি সপ্তাহে রক্ত পরীক্ষার মাধ্যমে দেখতে হবে ইনফেকশনটা বেড়েছে কি-না। এছাড়া অন্য কোনো সমস্যাও হতে পারে। ইনফেকশনটা হাড়ের ভেতর থাকলে, সেটি সেরে ওঠার সম্ভাবনা নেই। হাড়ের ভেতর যেহেতু রক্ত নেই, আর সেখানে যেহেতু অ্যান্টিবায়োটিক পৌঁছায় না, তাই অপেক্ষা করতেই হবে। এটা নিশ্চিত হওয়ার জন্যই আসলে ৬ থেকে ১২ মাস কোনো অস্ত্রোপচার করানো যাবে না।’

অস্ত্রোপচার ছাড়াই মাঠে নামার ইঙ্গিতও দিলেন সাকিব। তিনি বলেন, ‘ভালো দিক হচ্ছে অস্ত্রোপচার না করেও খেলা সম্ভব হতে পারে। এখন যেহেতু অস্ত্রোপচার করার সুযোগ নেই, তাই অস্ত্রোপচার ছাড়া কীভাবে খেলা যায় সেটি নিয়ে ভাবা হচ্ছে।’

তবে মাঠে ফিরতে হলে পুনর্বাসন করতে হবে সাকিবকে। এখন একমাত্র পুনর্বাসনই তাকে মাঠে ফেরাতে পারে বলে জানান সাকিব। তিনি বলেন, ‘আমি ইতোমধ্যে পুনর্বাসন শুরু করে দিয়েছি। অস্ট্রেলিয়াতে থাকতেই পুনর্বাসন শুরু করেছি। সেখানে হাতের থেরাপিস্টকে দেখানো হয়েছে। তিনি যেভাবে বলেছে, সেভাবে কাজ করতে হবে। যত বেশি করা যাবে তত আমার জন্য ভালো। বেশি বেশি করে শক্তিটা আবার আনা সম্ভব, সেটাই এখন আমার মূল উদ্দেশ্য।’

অস্ট্রেলিয়া থেকে ফিরে আগের চাইতে বেশ ভালো অনুভব করছেন সাকিব। এ ব্যাপারে সাকিব বলেন, ‘এখন খুবই ভালো আছি। কোনো সমস্যা অনুভব করছি না। কতদিনে আমার শক্তি ফিরে আসে সেটা সময়ের ব্যাপার। নিশ্চিত হতে হবে যে আঙুলে আর কোনো ইনফেকশন আছে কি না। সেটার জন্য অপেক্ষা করতে হবে।’

 

 

১৪ অক্টোবর, ২০১৮ ২৩:৪৮:১১