পাকিস্তানের স্বাধীনতা দিবসে সানিয়াকে কটাক্ষ
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
বিয়ের পর অনেকগুলো বছর কেটে গিয়েছে। কিন্তু বিতর্ক আর কটাক্ষ পিছু ছাড়েনি সানিয়া মির্জাকে। পাক ক্রিকেটার শোয়েব মালিককে বিয়ে করায় এখনও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে রোষের মুখে পড়তে হয় ভারতীয় টেনিস তারকাকে। স্বাধীনতা দিবসের সময়েও এর ব্যতিক্রম হল না।

পাকিস্তানে ১৪ আগস্ট স্বাধীনতা দিবস হিসেবে পালিত হয়। আর সেই সূত্র ধরেই এক নেটিজেন কটাক্ষের সুরে সানিয়াকে স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়ে লেখেন, 'আপনার স্বাধীনতা দিবস তো আজই।' পোস্টটির মাধ্যমে পরোক্ষভাবে সানিয়াকে পাকিস্তানি সম্বোধনই করতে চেয়েছেন তিনি।

এমন পোস্ট চোখ এড়ায়নি সানিয়ার। সেই পোস্টের পাল্টা দেন বিশ্বের সাবেক এক নম্বর টেনিসতারকা। তিনি লেখেন, ' না, আমার ও আমার দেশের স্বাধীনতা দিবস ১৫ আগস্ট। আর আমার স্বামীর দেশের স্বাধীনতা দিবস ১৪ আগস্ট। আশা করি আপনার আর কোনও মতলব নেই। আপনার স্বাধীনতা দিবস কোনটি? আসলে আপনি এত মতলবে রয়েছেন, তাই জিজ্ঞেস করছি।'

সানিয়ার এমন কড়া জবাবের প্রশংসা করেছেন ভারতীয় ভক্তরা। টেনিস তারকার পাশে দাঁড়িয়ে পাকিস্তানি ওই ব্যক্তিকে একহাত নিয়েছেন অনেকেই। পাক বধূ যে এভাবে তার কটাক্ষের পাল্টা জবাব দিবেন, তা হয়তো ধারণা ছিল না ওই পাকিস্তানির। তাই বিতর্ক থামাতে তড়িঘড়ি নিজের পোস্টটি মুছে ফেলেন তিনি। কিন্তু ততক্ষণে নেটদুনিয়ায় ভাইরাল হয়ে গিয়েছে পোস্টটির স্ক্রিনশট।

শোয়েব মালিকের সঙ্গে বিয়ের পর থেকেই প্রশ্ন উঠেছিল, খেলায় কোন দেশের প্রতিনিধিত্ব করবেন সানিয়া? কোথায় পাকাপাকিভাবে থাকবেন? কিন্তু প্রতিক্ষেত্রেই সানিয়া প্রমাণ করে দিয়েছেন, তিনি আগে ভারতের মেয়ে এবং পরে পাকিস্তানের বধূ।

এমন পরিস্থিতিতে সন্তানসম্ভবা সানিয়ার শুভানুধ্যায়ীদের অনেকেই তাকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে দূরে থাকার পরামর্শ দিচ্ছেন। সন্তানের উপর এর যাতে কোনও প্রভাব না পড়ে, তেমনটাই কামনা তাদের। তবে সোজাসাপ্টা সানিয়া বলেন, ট্রোল ছাড়াও ইন্টারনেটে অনেক ভাল জিনিসও রয়েছে। সেসব নিয়ে বেশ ভালই আছেন তিনি।

 

 

 

 

১৬ আগস্ট, ২০১৮ ০৫:৫৭:৪২