বাড়ি থেকে অপহৃত ব্রাজিলীয় ফুটবলারের মা, গ্রেপ্তার ৪
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
বিশ্বকাপ শেষ হতেই দুঃসংবাদ। ফুটবলার টাইসনের মাকে অপহরণ করল ব্রাজিলের কিছু দুষ্কৃতী। যদিও পুলিশ অপহরণকারীদের কাছ থেকে তাঁকে উদ্ধার করেছে। আপাতত এই নিয়ে ব্রাজিল ফুটবল মহল সরগরম। রাশিয়া বিশ্বকাপে নেইমারদের দলে ছিলেন টাইসন। ৩০ বছরের টাইসন এখন ক্লাব ফুটবল খেলেন ইউক্রেনের শাখতারে। গত একমাস ধরে বলতে গেলে রাশিয়ায় ছিলেন টাইসন। লেফট উইংগারে খেলেন তিনি। বাড়ি ব্রাজিলের দক্ষিণে মন্তে বোনিতো শহরে। এই জায়গাটি হল ব্রাজিল ও উরুগুয়ের সীমান্তে। ফলে দুষ্কৃতীদের পক্ষে অপহরণ করে দেশান্তরে চলে যেতে সমস্যা হয় না। টাইসনের মা বাড়ির গেটের সামনে এক ব্যক্তির থেকে ফুলের তোরা নিতে এসেছিলেন। ঠিক সেই সময়ই কয়েকজন অপহরণকারী তাঁকে জোর করে গাড়িতে তুলে নিয়ে চম্পট দেয়। গোটা দৃশ্য ধরা পড়েছে সিসিটিভি ফুটেজে। সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয় পুলিশে খবর দেন প্রত্যক্ষদর্শীরা। খবর পাওয়া মাত্র তল্লাশি শুরু করে পুলিশ। মন্তে বোনিতো শহর খুব একটা বড় নয়। ফলে অনুসন্ধান চালিয়ে তাঁরা কিছুক্ষণের মধ্যেই উদ্ধার করেন টাইসনের মা রোসানগেলা বার্সিলেজ ফ্রেডাকে। ৫৮ বছরের প্রৌঢ়াকে দুষ্কৃতীরা অপহরণ করে একটি বাড়ির গ্যারেজের ভিতর চেয়ারের সঙ্গে বেঁধে রেখেছিল। সেই অবস্থাতেই তাঁকে উদ্ধার করে পুলিশ। চারজন অপহরণকারীর মধ্যে আবার একজন ছিলেন মহিলা। তবে ফ্রেডা যে ফুটবলার টাইসনের মা তা জানত দুষ্কৃতীরা। তাই তাঁর সঙ্গে কোনও অভব্য আচরণ করেনি তারা। এমনকী পুলিশকেও বিশেষ বাধা দেয়নি অপহরণকারীরা। ঘটনায় চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। একজন পলাতক।

ব্রাজিলে এমন ঘটনা এই প্রথম নয়। অতীতেও ঘটেছে। লুই ফ্যাবিয়ানো ও গ্রাফির মাকেও অপহরণ করা হয়েছিল। পরে তাঁদের উদ্ধার করতেও সফল হয় পুলিশ। তবে সদ্য বিশ্বকাপ খেলে ফেরা এক বিশ্বকাপারের মাকে কিনা বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যাওয়া হল! তাই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়ায়। পুলিশ পরে সংবাদমাধ্যমকে জানায়, “অপহরণকারীরা জানত একজন বিশ্বকাপারের মাকে তুলে এনেছে তারা। তাই ফ্রেডার সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করেনি। তবে আপহরণের পিছনে আসল কারণ কী তা আমাদের খতিয়ে দেখতে হচ্ছে।” সব জেনেশুনেও কেন তাঁকে অপহরণ করা হল সে বিষয়ে এখনও ধন্দে পুলিশ। ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্ত চলছে।

 

১৮ জুলাই, ২০১৮ ২৩:২৮:৫৭