এই তরুণীর জন্যেই রাশিয়ার হার!
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
বিশ্বকাপে সমর্থকদের উন্মাদনা বেড়ে যায়। নিজের দলের প্রতি ভালোবাসা প্রকাশ করতে সমর্থকরা নানা কাণ্ড ঘটান। মাঠে গিয়ে প্রিয় দলের জন্য গলা ফাটান অনেকে। রাশিয়া বিশ্বকাপও তার ব্যতিক্রম নয়। বিশ্বকাপের উদ্বোধনী দিন রাশিয়াকে সমর্থন দেয়া এমনই এক সুন্দরী নজর কেড়েছিলেন সবার। সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছিল তার ছবি। রাশিয়া বিশ্বকাপের সবচেয়ে ‘হটেস্ট ফ্যান’ বলা হচ্ছিল তাকে। অবশেষে পরিচয় মিলেছে সেই সুন্দরীর। রাশিয়ার হয়ে গ্যালারি কাঁপানো নাতালিয়া নেমচিনোভা আসলে নীল ছবির নায়িকা। ব্রিটিশ সংবাদ সংস্থা দ্য সানের প্রতিবেদনে উঠে আসে এই তথ্য। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোতে নাতালিয়ার ছবি প্রকাশ হওয়ার পর থেকে তার পরিচয় জানতে আগ্রহ প্রকাশ করেছিলেন অনেকে। তার সৌন্দর্যে বিমোহিত হওয়া মানুষের সংখ্যাও কম নয়। তাই সোশ্যাল মিডিয়ার গোয়েন্দারা দ্রুত বের করে ফেলেছেন তার পরিচয়।

নাতালিয়ার ফ্যান আইডি জুম করে তার নাম বের করে গুগলে সার্চ দিয়ে জানা যায় নীল ছবিতে নায়িকা হিসেবে অভিনয় করেন এই আবেদনময়ী। একাধিক পর্নো সাইটে নাতালিয়া আন্দ্রেভা, অ্যানাবেল, আইশা, আমান্ডাসহ আরও বিভিন্ন নামে অভিনয় করেছেন তিনি। পর্নো সাইটের তথ্য থেকে জানা যায়, ২০১৬ সালে নীল ছবিতে অভিনয় শুরু করেন নাতালিয়া। ২০০৭ সালে ‘মিস মস্কো’ খেতাব জিতেছিলেন তিনি। নীল ছবিতে অভিনয় করলেও ফুটবল ফ্যান হিসেবে নাতালিয়ার সুনাম রয়েছে। ২০১৬ ইউরো কাপে নিজ দেশ রাশিয়াকে সমর্থন দিতে ফ্রান্সে গিয়েছিলেন এই সুন্দরী। 

রাশিয়ার প্রতিটি ম্যাচেই গ্যালারিতে উজ্জ্বল তার উপস্থিতি। রুশ সুন্দরী নাতালিয়া নেমচিনোভাকে নিয়ে এবার হইচই পড়ে গিয়েছে গোটা দেশে। নেটদুনিয়াতেও এই রূপসীর চর্চা কম নয়। আর বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে রাশিয়া বনাম ক্রোয়েশিয়া ম্যাচে ফের উঠল তার নাম।

কোয়ার্টার ফাইনালের আগে রাশিয়ার প্রত্যেক ম্যাচে দেশের পতাকা হাতে, জার্সি গায়েই দেখা গিয়েছে এই লাস্যময়ী যুবতীকে। তার উপস্থিতিতে প্রতিবারই এসেছে কাঙ্খিত জয়। আর ৪৮ বছর পর টুর্নামেন্টের কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছে গিয়েছিল রাশিয়া। সব ম্যাচেরই সাক্ষী ছিলেন নাতালিয়া। কিন্তু শনিবারের ম্যাচে ক্যামেরার লেন্স তাকে খুঁজে পায়নি। আর সেই দিনই বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে গেল তার দেশ। বিষয়টা কাকতালীয় হলেও অনেকেই বলছেন, নাতালিয়া শুধু রাশিয়ার হটেস্ট ফ্যানই নন, লাকিয়েস্টও বটে। তাই তো তার অনুপস্থিতিতে জয়ের মুখই দেখা হল না রাশিয়ার। অর্থাৎ লেডিলাক ফাঁকি দিতেই বিপাকে পড়তে হল রুশদের।

এবারের বিশ্বজয়ের ট্রফি যদি রাশিয়ার ঘরে ওঠে, তবে ফুটবলারদের সঙ্গে নগ্ন হয়ে ছবি তুলবেন। টুর্নামেন্টের শুরুতে এমনই প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন ২৮ বছরের নাতালিয়া। যদিও রাশিয়া বিদায়ের সঙ্গে সঙ্গে সে দৃশ্য আর দেখা হল না দুনিয়ার। এর মধ্যে আবার বিতর্কেও জড়িয়ে পড়েছিলেন। একটি পর্ন ভিডিও ভাইরাল হয়। সংবাদমাধ্যমে খবর ছড়িয়ে পড়ে ফুটবলপ্রেমীদের জাতীয় ‘ক্রাশ’ নাতালিয়া আসলে একজন পর্নস্টার। তারপরই বিতর্কের ঝড় ওঠে। রাশিয়ান রমণী সাফ জানিয়ে দেন, এমন খবর সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন।

স্বল্পবসনা যুবতী মাথায় মুকুট ও মিষ্টি হাসি দিয়ে মন ভুলিয়েছিলেন ফুটবলপ্রেমীদের। সোশ্যাল মিডিয়ায় রাতারাতি তারকায় পরিণত হয়েছিলেন। কিন্তু কেন তিনি শেষ আটের ম্যাচ দেখতে এলেন না? সে উত্তর এখনও মেলেনি। তিনি আদৌ অনুপস্থিত ছিলেন কিনা, তাও জানা যায়নি। তবে নাতালিয়ার অনুস্থিতিতেই যেন হ্যাপি এন্ডিং হল না রাশিয়ার। আর রুশদের বিদায়ের সঙ্গে তাকে দেখার আশাও ছাড়তে হল দর্শকদেরও।

০৯ জুলাই, ২০১৮ ০৫:৫৬:৫৯