টাইব্রেকারে রাশিয়ার কাছে হেরে বিশ্বকাপ থেকে বিদায় স্পেনের
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
নির্ধারিত সময়ে ম্যাচের ফল ছিল ১-১৷ দুই অর্ধে ১৫ মিনিট করে মোট আধ ঘণ্টার এক্সট্রা টাইমেও স্কোর লাইনে বদল হয়নি৷ স্বাভাবিকভাবেই ম্যাচের নিস্পত্তি হয় পেনাল্টি শুট-আউটে৷ স্পট কিকে স্পেনকে ৪-৩ গোলে হারিয়ে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে জায়গা করে নেয় রাশিয়া।

নির্ধারিত প্রথম ৯০ মিনিট। তারপর আরও ৩০মিনিটেও যখন খেলার ফয়সালা হলো না ম্যাচ গড়ালো ট্রাইবেকারে। টান টান উত্তেজনার সেই ট্রাইবেকারে স্পেনকে ৪-৩ ব্যবধানে হারিয়ে নিজেদের কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করলো স্বাগতিক রাশিয়া।

মস্কোর লুঝনিকি স্টেডিয়ামে চলতি বিশ্বকাপের দ্বিতীয় রাউন্ডের তৃতীয় ম্যাচে মুখোমুখি হয় স্পেন ও রাশিয়া। ম্যাচের শুরুতেই রাশিয়ার ভুলে এগিয়ে যায় স্পেন। রুশ ডিফেন্ডার সার্জেই ইগনাশেভিচের আত্মঘাতি গোলে লিড পায় রাশিয়া। আবার স্পেনের ভুলে খেলায় সমতাসূচক গোল দেওয়ার সুযোগ পায় রাশিয়া। ম্যাচের ৪০ মিনিটে নিজেদের ডি-বক্সে স্প্যানিশ খেলোয়াড়া জিরার্ড পিকে হ্যান্ডবলের ফাঁদে পড়লে পেনালটি পায় রাশিয়া। ৪১ মিনিটে পেনালটি থেকে দলকে সমতায় ফেরান রুশ ফরোয়ার্ডার আরটেম জুইবা। এই যে ম্যাচে সমতা আসলো শেষ পর্যন্ত তা আর ভাঙ্গলো না। যেন ফেভিকলের আঠার জোরা দেওয়া।

প্রথমার্ধ শেষে ১-১ –এর সমতা নিয়ে বিরতিতে যাওয়া স্পেন ও রাশিয়া ম্যাচের ৯০ মিনিট পর্যন্ত তা বজায় রাখে। অতিরিক্ত সময়ের প্রথম ও শেষ ১৫ মিনিটেও গোলের দেখা পায়নি কোন দলই। বলা ভালো যার যার গোল পোস্ট সামলে নিয়ে অনেকটা রক্ষণাত্মকভাবেই খেলে দুই দল। তবে এর মাঝখানে গোলের চেষ্টা যে হয়নি তা না। নিশ্চিত কয়েকটি সুযোগ কাজে লাগাতে ব্যর্থ হয়েছে দুই দলই। ভাগ্য দেবী হয়তো চাচ্ছিলেন ম্যাচের ফয়সালা হোক সেই ট্রাইবেকারেই।

এবারের বিশ্বকাপে প্রথম ট্রাইবেকার হওয়া ম্যাচে দর্শকদের নিরাশ হতে হয়নি। টান টান উত্তেজনায় অবশ্য নিজেদের স্নায়ুর ওপর নিয়ন্ত্রণ রাখতে ব্যর্থ হয়েছে স্প্যানিশরা। শুরুর দুই পেনালটি শট নেন ইনিয়েস্তা ও পিকে। ঠিকঠাকই ছিল সবকিছু। কিন্তু ছন্দপতন ঘটান কোকে। এরপরের বার অধিনায়ক রামোস পেনালটি মিস না করলেও শেষ পেনালটি মিস করে বসেন বদলি খেলোয়াড় ইয়াগো অ্যাসপাস। আর তাতেই কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত রাশিয়ার।

রুশদের আজকের এই জয়ের নায়ক নিঃসন্দেহে অধিনায়ক ও গোল রক্ষক ইগোর আকিনফিভ। পেনালটি শুট আউটে স্প্যানিশদের দুইটি শট দারুণ দক্ষতার সাথে রুখে দেন তিনি। শেষ পেনালটি শট রুখে দেন পায়ের খোঁচায়। দৃষ্টিনন্দন ও জয়সূচক পারফরম্যান্সের জন্য আজকের ম্যাচসেরাও ইগোর আকিনফিভ।

 

০১ জুলাই, ২০১৮ ২৩:১৬:৪৩