ফ্রান্সের কাছে কখনো হারেনি আর্জেন্টিনা
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
আজ শনিবার থেকেই বিশ্বকাপ ফুটবলের মহামঞ্চে শুরু হচ্ছে একটি দলের শুরু ‌ও অন্য দলের শেষের পালা। নকআউট পর্বের এই রাউন্ডে পরাজিত দলকে ফিরে যেতে হবে টুর্নামেন্ট থেকে। তাই লড়াইয়ের ব্যাপারে আর্জেন্টিনা এবং ফ্রান্স বেশ সতর্ক। দুটি দলেরই যে একই মিশন শিরোপা জয়।

পরিসংখ্যান বলছে, এই লড়াইয়ে জয়ের ক্ষেত্র এগিয়ে আছে লি‌ওনেল মেসির আর্জেন্টিনাই। বিশ্বকাপে দুই দেশের দেখা হয়েছিল দু’বার। ১৯৩০ এবং ১৯৭৮ সালের বিশ্বকাপে। আর দু’টি বিশ্বকাপেই আর্জেন্টিনা ফাইনাল খেলেছিল। বলাই বাহুল্য যে, সেই দেখায় ফ্রান্সকেও হারিয়েছিল নীল-সাদা জার্সিধারীরা।

দু’বারের বিশ্বকাপেই গ্রুপ পর্বে মুখোমুখি হয়েছিল ফ্রান্স ও আর্জেন্টিনা। ১৯৩০ সালের বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনা ১-০ হারিয়েছিল ফ্রান্সকে। ১৯৭৮ সালে আর্জেন্টিনার কাছে ২-১ হারতে হয় ফ্রান্সকে। এবারই প্রথম নকআউট পর্বে মুখোমুখি হচ্ছে দুই দেশ।

প্রীতি ম্যাচেও আর্জেন্টিনা অনেক এগিয়ে ফ্রান্সের থেকে। নয়টি প্রীতি ম্যাচে আর্জেন্টিনা হেরেছে মাত্র দু’বার। চারটি ম্যাচে জিতেছে দিয়েগো মারাডোনার। তিনটি ম্যাচ ড্র হয়। শনিবার মাঠে নামার আগে আরও একটি তথ্য আর্জেন্টিনার হয়ে কথা বলছে। তাতে আত্মবিশ্বাসী হতে পারেন লিওনেল মেসিরা। তা হলো, ১৯৮৬ সালের পর ফ্রান্সের কাছে আর্জেন্টিনা আর হারেনি। এর পরে অবশ্য দু’দেশের সাক্ষাৎ হয়েছে মাত্র দু’বার। ২০০৯ সালে শেষ বার দেখা। তার পর নয় বছর কেটে গেছে। ফ্রান্স আর আর্জেন্টিনার মধ্যে কোনও ম্যাচ হয়নি।

তবে পরিসংখ্যান তো আর কখনো ম্যাচ হয় না। শুধু গাণিতিক হিসেব মাত্র। শনিবার নতুন দিন। নতুন ম্যাচ। পরিসংখ্যান বদলেও যেতে পারে। কিন্তু অতীতের পরিসংখ্যান জেনে লিওনেল মেসির দল আত্মবিশ্বাসী হতেই পারে। এই পরিসংখ্যানের কথা দিয়েই হয়তো জয়ের ব্যাপারে দলকে উজ্জ্বীবিত করতে পারেন কোচ হোর্হে সাম্পা‌ওলি। তাছাড়া কাজান এরেনায় ফ্রান্সের মুখোমুখি হ‌ওয়ার আগে অন্তত পরিসংখ্যানের দিক থেকে এগিয়ে থাকছে আর্জেন্টিনা।

 

৩০ জুন, ২০১৮ ১০:৪২:৪৭