চিটাগংকে বিশাল ব্যবধানে হারাল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট


পঞ্চম আসরের শুরুটা ভালো হয়নি কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের। তবে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচেই স্বরূপে ফিরল তৃতীয়বারের চ্যাম্পিয়নরা।  এ ম্যাচে চিটাগাং ভাইকিংসকে হেসেখেলে হারিয়েছে তারা। একদিন বিরতি দিয়ে সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে গড়ায় এবারের বিপিএল। এদিনও ইনজুরির কারণে কুমিল্লা দলে ছিলেন না আইকন খেলোয়াড় তামিম ইকবাল। তার পরিবর্তে অধিনায়কত্ব করেন মোহাম্মদ নবী। টসে জিতে প্রথমে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন কুমিল্লা অধিনায়ক।

এতে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নামে চিটাগাং। নেমে বড় স্কোরের আশা জাগিয়েও সমর্থকদের হতাশ করে চট্টলার দলটি। সৌম্য ও রনকির ওপেনিং জুটিতে দুর্দান্ত শুরু পরও মিডলঅর্ডার ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় নির্ধারিত ওভার শেষে ৭ উইকেটে ১৪৩ রান তুলতে সক্ষম হয় তারা। শেষ ১০ ওভারে আসে মাত্র ৫২। জবাবে ১৭.২ ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে নোঙর করে কুমিল্লা।

সিলেটের কাছে প্রথম ম্যাচে হারের পর জয়ে ফিরতে মরিয়া ছিল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস। বোলাররা তাদের এক্ষেত্রে সাহায্য করে। ষষ্ঠ ওভারের পঞ্চম বলে বিপদজনক হয়ে ওঠা নিউজিল্যান্ডের রনকিকে (৪০) অলোক কাপালির ক্যাচ বানিয়ে ব্রেক থ্রু এনে দেন অধিনায়ক নবী।

রনকির বিদায়ে দিলশাল মুনাবিরাকে নিয়ে রানের চাকা সচল রাখছিলেন দলের আইকন ক্রিকেটার সৌম্য। ১০ ওভার শেষে স্কোর ছিল ১ উইকেটে ৯১। কিন্তু ১ ওভারে (১৪তম) ২ উইকেট নিয়ে চিটাগাংকে ব্যাকফুটে ঠেলে দেন উদীয়মান পেস বোলিং অলরাউন্ডার মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন। সৌম্যকে (৩৮) বোল্ড করার পর আনামুল হককে (৩) লং-অনে ডোয়াইন ব্রাভোর তালুবন্দি করান। জোড়া আঘাত আর সামলে উঠতে পারেনি চিটাগাং।

তার আগে ১২তম ওভারে স্কুপ শট খেলতে যাওয়া মুনাবিরাকে (২১) স্লোয়ার ডেলিভারিতে স্যামুয়েলসের ক্যাচে পরিণত করেন ব্রাভো।  সৌম্য-রনকি-মুনাবিরা আর ১৮ রানে অপরাজিত থাকা সিকান্দার রাজা ছাড়া কেউই দুই অঙ্কের ঘর স্পর্শ করতে পারেননি।

কুমিল্লার পক্ষে ২৪ রানের বিনিময়ে সর্বোচ্চ ৩টি উইকেট দখল করেন সাইফুদ্দিন। ব্রাভো নেন ২ উইকেট। বাকি ২টি নেন আল আমিন হোসেন ও মোহাম্মদ নবী।

১৪৪ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে ভিক্টোরিয়ানস ওপেনার লিটন দাস ব্যক্তিগত ২৩ রানে বিদায় নেন। সাজঘরে ফেরার আগে ১৪ বলে ৩টি চার আর ১টি ছক্কা হাঁকান তিনি। আরেক ওপেনার জস বাটলার ৪২ বলে ৩টি চার আর ২টি ছক্কায় করেন ৪৮ রান। তিন নম্বরে নামা ইমরুল কায়েস ৩১ বলে ৩৩ রান করে অপরাজিত থাকেন। ব্যাটে ঝড় তোলা মারলন স্যামুয়েলস ১৮ বলে ৪টি চার আর ১টি ছক্কা হাঁকিয়ে ৩৫ রান করে অপরাজিত থাকেন।

চিটাগাংয়ের হয়ে ২ উইকেট শিকার করেন সুভাশিষ রায়।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

চিটাগাং ভাইকিংস:

২০ ওভার ১৪৩/৭ (লুক রনকি ৪০, সৌম্য সরকার ৩৮, দিলশান মুনাবিরা ২১, আনামুল হক ৩, মিসবাহ উল হক ৬, লুইস রিস ৯, সিকান্দার রাজা ১৮*, সোহরাওয়ার্দি শুভ ৩, সানজামুল ইসলাম ১*; আরাফাত সানি ০/১৯, আল-আমিন হোসেন ১/২৮, ডোয়াইন ব্রাভো ২/২৯, মোহাম্মদ নবী ১/১৮, রশিদ খান ০/২১, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ৩/২৪)

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস:

১৭.২ ওভার ১০৪/২ (লিটন দাস ২৩, জস বাটলার ৪৮, ইমরুল কায়েস ৩৩*, মারলন স্যামুয়েলস ৩৫*; সানজামুল ইসলাম ০/২৭, সোহরাওয়ার্দী শুভ ০/২৯, তাসকিন আহমেদ ০/৩৬, শুভাশীষ রায় ২/২৪, সিকান্দার রাজা ০/১৭, লুইস রিস ০/১০)

ফলাফল: কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস ৮ উইকেটে জয়ী।

ম্যান অব দ্য ম্যাচ: মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন (কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস)।


০৭ নভেম্বর, ২০১৭ ২০:৩১:২৪