‘হারানোর কিছু নেই, এটাই আমাদের সুযোগ’
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
সাকিব আল হাসান
টেস্ট ও ওয়ানডে সিরিজে পরাজয়ের পর বাংলাদেশের জন্য শেষ আশা এখন টি-টোয়েন্টি। র‌্যাঙ্কিং এবং ফর্মে প্রোটিয়ারা অনেক এগিয়ে। তবে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে বড় ও ছোট দলের পার্থক্য কম হওয়ায় বাংলাদেশ দল জয়ের আশা করতেই পারে।

দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে আজ বৃহস্পতিবার স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে মাঠে নামবে টাইগাররা। ব্লুমফন্টেইনে ম্যাচ শুরু হবে বাংলাদেশ সময় রাত ১০টায়। ম্যাচের আগের দিন গতকাল বুধবার সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েছেন বাংলাদেশের দলপতি সাকিব আল হাসান। খবর আরটিভি'র।

এ ম্যাচের মধ্য দিয়েই ক্রিকেটের সবচেয়ে ছোট ফরমেটে দলের অধিনায়কত্ব গ্রহণ করছেন তিনি। জানালেন আশার কথা।

স্বভাবতই সোজাসাপটা সাকিব বললেন, যেহেতু আমাদের হারানোর কিছু নেই, আমার মনে হয়, এটাই আমাদের একটা সুযোগ।

তিনি বলেন, বড় স্কোরের ম্যাচ হওয়ারই সম্ভাবনাই বেশি। দুই দলের কারা বোলিংটা ভালো করে সেটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ হয়ে যায় এই ধরনের ম্যাচ জেতার ক্ষেত্রে। অন্যদিকে, ফিল্ডিংটা আমার কাছে মনে হয় সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ। ওই অংশটা যদি আমরা ঠিকঠাকভাবে করতে পারি তাহলে  আত্মবিশ্বাস অনেকটাই বাড়িয়ে দেবে। ভালোভাবে এই দুইটা ম্যাচ শেষ করতে পারব।

তিনি জানান, তবে টি-টোয়েন্টির একটা সুবিধা আছে যে, একজন-দুইজন বোলার ভালো বোলিং করতে পারলে কিংবা একজন-দুইজন ব্যাটসম্যান ভালো ব্যাটিং করলে ম্যাচ জিতে যাওয়া সম্ভব। আমি কখনোই বলব না যে কাজটা সহজ। দক্ষিণ আফ্রিকা সবসময়ই কঠিন একটা জায়গা। 

এদিকে, বাংলাদেশের জন্য বড় চিন্তা টপ-অর্ডারদের ফর্ম খরার পাশাপাশি বোলারদের অফ-ফর্ম। আর তামিম ইকবাল ও মুস্তাফিজুর রহমান না থাকাটাও সফরকারীদের জন্য বড় ক্ষতি। 

এনিয়ে সাকিব বললেন, একাদশ নির্বাচন নিয়ে সেভাবে চিন্তা করার সুযোগও নেই। আমাদের এখানে খেলোয়াড় রয়েছে মাত্র ১৪ জন। তবে আমার মনে হয়, এটা আমাদের জন্য একটা ভালো সুযোগ। এরকম পরিস্থিতি থেকেও আমরা যদি ভালো জায়গায় যেতে পারি, তাতে আমাদের সামর্থ্যের একটা দিক দেখানো হবে। তিনি বলেন, আমি তো চাই, সবাই নিজের সেরা পারফরম্যান্স করুক।  চেষ্টা সবাই করবে। কিন্তু সবাই যে ভালো করবে এমন কোনো কথাও নেই।

সাকিব বলেন, টি-টোয়েন্টিতে দেখবেন, বেশিরভাগ খেলা ১৯ কিংবা ২০ নম্বর ওভারে গিয়ে শেষ হয়। স্বাভাবিকভাবেই দুইটা দলেরই জয়ের সুযোগ থাকে। তাই এ দিক থেকে আমার মনে হয়, এটা আমাদের জন্য একটা সুবিধা।

যদিও পরিসংখ্যান একেবারই বাংলাদেশের বিপক্ষে। এখন পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে খেলা ৪ ম্যাচের সবকটিতেই হেরেছে বাংলাদেশ। 

বিশ্বের অন্যতম সেরা এ অলরাউন্ডার বলেন, এ ফরম্যাটের ক্রিকেটে আমাদের এখনও অনেক দূর যেতে হবে। অন্যান্য দলের মতো আমাদের তেমন ‘বিগ হিটার’ নেই। তাই আমাদের প্রতিটা ছোট ছোট ব্যাপার ঠিকভাবে করতে হয়। প্রতিটি কাজ করতে হবে নিখুঁতভাবে। কোথাও কোনো ছাড় দেয়া যাবে না। দিলে আমাদের জেতার সুযোগ অনেকটাই কমে যাবে।

ইনজুরির কারণে অধিনায়ক ফাফ ডুপ্লেসি না থাকলেও ডি ভিলিয়ার্স-মিলার ও ডুমিনিরা বাংলাদেশের জন্য চিন্তার কারণ।

তবে জয়ের জন্য অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের ওপরই বাংলাদেশ বেশি ভরসা করবে।

 

 

 

 

 

২৬ অক্টোবর, ২০১৭ ১০:৫৫:৩৩