ভালো হয়ে যান, নইলে চরম পরিণতি ভোগ করতে হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
মাজেদ মাজু, সাঘাটা (গাইবান্ধা)
অ+ অ-প্রিন্ট


স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল মাদকের গডফাদার ও মাদক ব্যবসায়ীদের হুশিয়ার করে বলেছেন, ভালো হয়ে যান, নইলে চরম পরিণতি ভোগ করতে হবে। দেশ থেকে মাদক নির্মূল করা হবে। মাদকের েেত্র কোনো ছাড় নেই, যেসব ব্যবসায়ী বাইরে আছে, তাদের েেত্র পুলিশ জিরো টলারেন্স ভূমিকা পালন করবে। তিনি আরও বলেন, পুলিশ বাহিনীর সমতা বৃদ্ধি করা হয়েছে। সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ দমনের েেত্র পুলিশ নজির স্থাপন করেছে। এলাকার আইন-শৃঙ্খলা রায় পুলিশকে সহযোগিতার জন্য জনগণের প্রতি আহ্বান জানান তিনি। তিনি গতকাল রোববার দুপুরে গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলা সদর কালিরবাজারে ফুলছড়ি থানার নব-নির্মিত ভবনের প্রশাসনিক কার্যালয়ের উদ্বোধন শেষে স্থানীয় নাপিতেরহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে এক মাদক বিরোধী সুধি সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। গাইবান্ধার পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আবদুল মান্নান মিয়া’র সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য দেন, জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া এম.পি, গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনের সাংসদ ব্যারিষ্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী, আত্মসমর্পনকারী মাদক ব্যবসায়ী জামিলুর রহমান প্রমুখ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, পুলিশের রংপুর রেঞ্জের ডিআইজি দেবদাস ভট্টাচার্য বিপিএম, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব রুহি রহমান, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর একান্ত সচিব হারুন-অর-রশিদ বিশ্বাস, রংপুর র‌্যাব-১৩ অধিনায়ক মোজাম্মেল হক, গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক আব্দুল মতিন, গাইবান্ধা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা, সাঘাটা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর কবির, নব-নির্বাচিত ফুলছড়ি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জিএম সেলিম পারভেজ প্রমুখ। সমাবেশে এলাকার ২০ জন মাদক ব্যবসায়ী ও ৫৪ জন মাদকসেবী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে আত্মসমর্পণ করেন। তারা মাদক ব্যবসা ছেড়ে অন্য ব্যবসা করার ঘোষণা দেন। পরে তাদেরকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। এর আগে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল ফুলছড়ির পুরাতন থানা গজারিয়া এলাকায় একটি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ফলক উম্মোচন করেন।    





 


২৪ মার্চ, ২০১৯ ১৯:৩০:৪০