রাঙামাটিতে ব্রাশফায়ারে প্রিজাইডিং অফিসারসহ নিহত ৭
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম
অ+ অ-প্রিন্ট
বাংলাদেশের পার্বত্য রাঙামাটি জেলার বাঘাইছড়ি উপজেলায় দুর্বৃত্তদের ব্রাশফায়ারে এক প্রিজাইডিং অফিসারসহ সাতজন নিহত ও ২০ জন আহত হয়েছেন।  আজ (সোমবার) সন্ধ্যা ৭টার দিকে বাঘাইছড়ির সিজক এলাকায় নির্বাচনী কাজ শেষে উপজেলা সদরে ফেরার পথে নয় কিলো এলাকায় হামলার শিকার হন তারা। নিহতরা হলেন, প্রিজাইডিং অফিসার আব্দুল হান্নান আরব, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার আবু তৈয়ব, সহকারী পোলিং অফিসার আমির হোসেন, আনসার সদস্য আলআমিন ও বিলকিস আক্তার। অপর দুজনের নাম মিহির কান্তি দত্ত ও মন্টু চাকমা।

বাঘাইছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাদিম সারওয়ার জানান, উপজেলার কংলাক, মাচালং ও বাঘাইহাটে উপজেলা পরিষদে ভোট গ্রহণ শেষে সন্ধ্যায় একসঙ্গে উপজেলা সদরে ফিরছিলেন নির্বাচনী কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্টরা। সন্ধ্যা ৭টার দিকে উপজেলা নয় মাইল এলাকায় সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা তাঁদের ওপর ব্রাশ ফায়ার করে। এতে অন্তত ছয়জন নিহত ও বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। পরে হাসপাতালে নেয়ার পর আরও একজন মারা যান। উল্লেখ্য, সোমবার বাঘাইছড়ি, নানিয়ারচর এবং কাউখালী উপজেলায় পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। 

এর আগে রাতে ভোট গ্রহণ ও দিনে ভোটারদের কেন্দ্রমুখী হতে না দেওয়ার অভিযোগ এনে বাঘাইছড়ি উপজেলায় ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির (জেএসএস-সন্তু লারমা) চেয়ারম্যান প্রার্থী বড়ঋষি চাকমা ও তিন ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী। আজ সকাল ৮টায় বাঘাইছড়ি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ভোট গ্রহণ শুরুর এক ঘণ্টা পরেই ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন তাঁরা।

পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির দুটি অংশের প্রভাবশালী দুই নেতা বড়ঋষি চাকমা ও সাবেক চেয়ারম্যান সুদর্শন চাকমা মুখোমুখি হয়েছিলেন এবারের চেয়ারম্যান পদে। ভোট বর্জনের ঘোষণা দিয়ে বর্তমান চেয়ারম্যান ও প্রার্থী বড়ঋষি চাকমা অভিযোগ করেছেন, ‘গতকাল রাতেই বিভিন্ন কেন্দ্রে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে ভোট গ্রহণ করা হয়েছে এবং আজ সকাল থেকেই আমার সমর্থক ভোটারদের কেন্দ্রে আসতে বাধা দেওয়া হয়। জনসংহতি সমিতির (এমএন লারমা) বিপুল বহিরাগত ও সশস্ত্র কর্মী এলাকায় অবস্থান নিয়ে ভোট-সন্ত্রাস করলেও প্রশাসন কোনো পদক্ষেপ না নেওয়ায় আমি নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দিলাম। আমার সঙ্গে আরো তিন ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীও নির্বাচন বর্জন করেছেন।’

রাঙামাটির রিটার্নিং কর্মকর্তা ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এস এম শফি কামাল বলেছেন, ‘বাঘাইছড়িতে একজন চেয়ারম্যান প্রার্থী ও একাধিক ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীর নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা আমরা শুনেছি। অন্যান্য উপজেলায় শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণ চলছে। কোথাও কোনো অভিযোগ পাইনি।’ এ ব্যাপারে বড়ঋষি চাকমার লিখিত অভিযোগ পেলে তা খতিয়ে দেখা হবে বলে জানান রিটার্নিং কর্মকর্তা।

১৮ মার্চ, ২০১৯ ২২:৩৪:৩৬