ডাকসু : পুনঃনির্বাচনের দাবিতে ভুখা মিছিল, হাসপাতালে ৩
ঢাবি প্রতিনিধি
অ+ অ-প্রিন্ট


ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনে অনিয়ম ও কারচুপির অভিযোগ এনে পুনঃনির্বাচনের দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ‘ভুখা মিছিল’ করেছেন অনশনে থাকা শিক্ষার্থী এবং প্রার্থীরা। গতকাল শুক্রবার বিকাল ৪টার দিকে রাজু ভাস্কর্য থেকে শুরু হওয়া এই মিছিলে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিার্থীরাও অংশ নেন। এদিকে, মিছিলে তিন অনশনকারী অসুস্থ হয়ে পড়ায় তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ভুখা মিছিলটি রাজু ভাস্কর্য থেকে শুরু হয়ে ভিসি চত্বর, মল চত্বর, কলাভবন শ্যাডো, কলা ভবন, অপরাজেয় বাংলা, ডাকসু ভবন এবং কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সামনে দিয়ে ঘুরে রাজু ভাস্কর্যে ফিরে আসে। আর অসুস্থরা হলেন, শোয়েব মাহমুদ, আল মাহমুদ ত্বাহা ও মীর আরাফাত মানব। তারা মিছিলে অংশগ্রহণ করলে অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তীব্র গরম আর রৌদ্রের মধ্যেই চতুর্থ দিনের মতো অনশন চালিয়ে যান সাতজন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে তিনজন অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে গেলে অনশনে থাকেন চারজন। বাকী অনশনকারীরা হলেন- পপুলেশন সায়েন্সের মাঈন উদ্দীন, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের তাওহীদ তানজিম, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের রাফিয়া তামান্না এবং আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের রবিউল ইসলাম। এর মধ্যে রবিউল দৃষ্টি প্রতিবন্ধী।

দৃষ্টি প্রতিবন্ধী রবিউল বলেন, ইতোমধ্যে অসুস্থ হয়ে তিনজন হাসপাতালে গিয়েছে। এখন আমরা চারজন এখানে আছি। আমাদেরও অবস্থা বেশি ভালো না। যেকোনো সময় অসুস্থ হয়ে যেতে পারি। চারদিন ধরে এখানে বসে আছি, কিন্তু এখন পর্যন্ত প্রশাসনের কেউ আমাদের সঙ্গে দেখা করতে আসেননি।

অনশনকারীদের সঙ্গে ভিপি নুরের একাত্মতা

এদিকে শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে অনশনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে দেখা করেন ডাকসুর নবনির্বাচিত ভিপি নুরুল হক নুর। অনশনকারীদের উদ্দেশে ‘আমি আপনাদের সঙ্গে আছি’ বলে একাত্মতা পোষণ করেন। এসময় বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের নেতাকর্মীরাও উপস্থিত ছিলেন।

সেখানে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে ভিপি নুর বলেন, চারদিন যাবৎ আমার ভাই বোনেরা এখানে অনশন করছেন। আমি হতাশ হলাম বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তাদের সাথে একবারের জন্য কথা বলতেও আসেনি, তাদের দেখতেও আসেনি। এখানে অনশনরতদের দাবি হচ্ছে পুনঃনির্বাচন। আমি তাদের দাবির সাথে অনেক আগেই একমত হয়েছি এবং প্রশাসনকেও বলেছি যে অনিয়ম হয়েছে সেজন্য পুনঃনির্বাচনের আয়োজন করা।

এসময় শনিবার (আজ) গণভবনে যাচ্ছেন কি না- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এই অনিয়ম এবং কারচুপির পরও যারা বিজয়ী হয়েছেন তাদেরকে প্রধানমন্ত্রী চায়ের আমন্ত্রণ করেছেন। তবে আমি যাওয়ার পক্ষে যেহেতু তিনি ডেকেছেন। আমরা আমাদের সমস্যাগুলোর কথা তার কাছে তুলে ধরব। তবে যেকোন সিদ্ধান্ত আমি আমার আন্দোলনকারী ভাইবোনদের সাথে কথা বলেই নেব।

‘আপনি ছাত্রলীগে ভিড়ছেন’ এমন প্রশ্নের জবাবে নুর বলেন, আমাকে নিয়ে কিছু বিভ্রান্তি তৈরী করা হচ্ছে। বিশেষ করে সাধারণ শিক্ষার্থীদের বিভ্রান্ত করা এবং আমার ইমেজকে ক্ষুন্ন করার জন্য একধরনের প্রচারণা। আমি আগে ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলাম  এখন আমি বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কোনো ধরণের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত নেই। আমিতো এখন একটি সংগঠনের (সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ) সঙ্গেই আছি। তাহলে অন্য রাজনৈতিক দলে আমি কেন যাব এটাতো প্রশ্নই ওঠে না।

২৪ ঘণ্টা আল্টিমেটামের কোনো অগ্রগতি হয়নি

এদিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রোকেয়া হলের প্রাধ্যক্ষের পদত্যাগ, হল সংসদে পুনঃনির্বাচনসহ চারদফা দাবিতে বৃহস্পতিবার রাতে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়েছিলো হলের ছাত্রীরা। গতকাল শুক্রবার প্রতিবেদনটি লেখা পর্যন্ত (সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা) ছাত্রীদের দেওয়া আল্টিমেটামের কোনো অগ্রগতি হয়নি বলে জানান হল সংসদে রোকেয়া পরিষদের ভিপি প্রার্থী শেখ মৌসুমী। রাত সাড়ে ১০টায় বেঁধে দেওয়া সময় শেষ হওয়ার কথা।

শেখ মৌসুমী বলেন, এখন পর্যন্ত আমাদের আল্টিমেটামের বিষয়ে কোনো অগ্রগতি হয়নি। প্রশাসন থেকে আমাদের কিছু জানানো হয়নি। সাড়ে ১০টার দিকে আমাদের বেঁধে দেওয়া সময় শেষ হবে। তারপর আমরা বসে সিদ্ধান্ত নেবো।



 


১৫ মার্চ, ২০১৯ ২১:১৭:৫০