শিশুদের শিক্ষার জন্য অতিরিক্ত চাপ দেওয়া উচিত নয়: প্রধানমন্ত্রী
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট


শিশুদের প্রথম শ্রেণিতে ভর্তির ক্ষেত্রে পরীক্ষা পদ্ধতি বন্ধ করার নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার (১৩ মার্চ) সকালে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এ নির্দেশ দেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেছেন,  স্কুলে ভর্তি হওয়া প্রত্যেক শিশুর  অধিকার। প্রথম শ্রেণিতে ভর্তির বয়স হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয় স্কুলে শিক্ষার্থীকে ভর্তি করাতে হবে। এলাকা ভিত্তিক যেসব প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে, এটা ঢাকা শহর হোক, সারা বাংলাদেশ হোক ইতিমধ্যে এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। যদিও এটা আরো ভালোভাবে করা দরকার। তাছাড়া, শিশুদের  শিক্ষা নিয়ে অভিভাবকদের অসুস্থ প্রতিযোগিতা বন্ধেরও আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, পড়াশুনার জন্য  শিশুদের অতিরিক্ত চাপ দেওয়া উচিত নয়। তারা যেন খেলতে খেলতে, হাসতে হাসতে সুন্দরভাবে পড়াশুনাটাকে নিজের মতো করে শিখে নিতে পারে সেই ব্যবস্থা করাই উচিত। সেখানে অনবরত পড় পড় (বলা) বা ধমক দেওয়াটা বাদ দিতে হবে। তাদেরকে আরো বেশি চাপ দিলে শিক্ষার ওপর তাদের আগ্রহটা আরো কমে যাবে। একটা ভীতি সৃষ্টি হবে। সেটা যাতে না হয় সেদিকে আমাদের শিক্ষক ও অভিভাবকের অনুরোধ করবো।

অভিভাবকদের সমালোচনা করে শেখ হাসিনা বলেন,অনেকেই ধারণা করেন যে, ইংরেজি শিক্ষা না দিলে বোধ হয় শিক্ষাই গ্রহণ করা  হলো না। কথাটা কিন্তু ঠিক নয়। কারণ আমাদের প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে যারা শিক্ষকতা করেন, তারা অনেক বেশি ট্রেনিংপ্রাপ্ত এবং শিক্ষিত। যারা উচ্চবিত্ত, যারা বিত্তশালী, তারা হয়তো তাদের ছেলে-মেয়েকে কোনো বিশেষ স্কুলে পড়াতে চান। কিন্তু প্রত্যেকটি শিশু যেন খুব সহজে এলাকাভিত্তিক স্কুলে যেতে পারে, সে ব্যবস্থা করতে হবে।

জাতীয় শিক্ষা  তথ্য আনুযায়ী,  গত দেড় দশকে দেশ প্রাথমিক শিক্ষার বিভিন্ন সূচকে অগ্রগতি হয়েছে। এই সময়ে বিদ্যালয়ে শিশুদের ভর্তির হার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯৭.৮৫ শতাংশ, । কমেছে ঝরে পড়ার হার। এসেছে লৈঙ্গিক সমতাও। এসবের ফলে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপ্ত করার সূচকেও  বৃদ্ধির প্রবনতা লক্ষ্য করা গেছে।

প্রাথমিক শিক্ষার এই অগ্রগতির প্রেক্ষাপটে আজ  বুধবার জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহ ২০১৯ আয়োজন  করা হয়। অনুষ্ঠানে  দেশের প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়নে ২০১৮ সালে বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদান রাখার জন্য শ্রেষ্ঠ কর্মকর্তা ও শিক্ষার্থীদের জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা পদক তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী।

জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহ উপলক্ষে পুরস্কারপ্রাপ্তদের অভিনন্দন জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে আমাদের স্বাধীনতা অর্জন করেছি। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু চেয়েছিলেন এমন বাংলাদেশ গড়তে, যে বাংলাদেশ হবে ক্ষুধামুক্ত, দারিদ্র্যমুক্ত, উন্নত, সমৃদ্ধ সোনার বাংলাদেশ। আজকের সোনামণি, ছোট-ছোট শিশু-কিশোর তারাই এ দেশের সোনার ছেলে-মেয়ে, তারাই ভবিষ্যতে দেশ গড়ে তুলবে। সেই আশাই পোষণ করি।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন।   অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব আকরাম-আল হোসেন।


১৩ মার্চ, ২০১৯ ১৯:৪৬:১৭