৭ দিনের আল্টিমেটাম দিয়ে শাহবাগ ছাড়ল আন্দোলনকারীরা
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম
অ+ অ-প্রিন্ট
বাংলাদেশের সরকারি চাকরিতে ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটা পুনর্বহালসহ ছয় দফা দাবিতে সাত দিনের আল্টিমেটাম দিয়ে রাজধানীর শাহবাগ মোড় থেকে অবস্থান কর্মসূচি প্রত্যাহার করে নিয়েছেন আন্দোলনকারীরা। শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে রাস্তা ছেড়ে দেন তারা।

এর আগে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্ম সমন্বয় পরিষদের ব্যানারে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা থেকে শাহবাগে সড়ক অবরোধ করেছিল শতাধিক বিক্ষোভকারী। পরে রাত সাড়ে ৯টার দিকে সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনটির আহ্বায়ক আমিনুল ইসলাম বুলবুল হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, ‘‘ছয় দফা দাবি আগামী সাত দিনের মধ্যে মেনে নেওয়া না হলে কঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে।’’ 

এর আগে, গত ২২ জানুয়ারি তারা একই দাবিতে শাহবাগ অবরোধ করেছিলেন। ওইদিন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী ঘটনাস্থলে গিয়ে সংহতি প্রকাশ করে তাদের দাবির কথা প্রধানমন্ত্রীর কাছে বলার আশ্বাস দেন। ছাত্রলীগের আশ্বাসে অবরোধ তুলে নিলেও আন্দোলনকারীরা কোটা বহালের সুস্পষ্ট ঘোষণা না এলে ২৭ জানুয়ারি আবারও দেশব্যাপী অবস্থান পালনের ঘোষণা দেন।

অবরোধের বিষয়ে মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নেতা সনেট মাহমুদ বলেন, ‘ছাত্রলীগের নেতাদের আশ্বাসে সেদিন (২২ জানুয়ারি) অবরোধ প্রত্যাহার করেছিলাম। আমরা ওইদিন কর্মসূচি দিয়েছিলাম। গতকাল আমরা প্রেস ক্লাবে মানববন্ধন করেছি। আজকের এই অবরোধ আমাদের পূর্ব ঘোষিত প্রোগ্রাম।’

তিনি আরও বলেন, ‘আজ প্রায় সাড়ে ১৩ হাজার মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সোনালী ব্যাংকে পরীক্ষা দিতে এসেছিলেন। তাদের সবাইকে আমরা জড়ো করে এই অবরোধ করছি। দাবি না মানা পর্যন্ত অবরোধ চলবে।’

অবরোধকারীদের দাবির মধ্যে রয়েছে- জাতির পিতা, তার পরিবারের সদস্য ও মুক্তিযোদ্ধাদের অবমাননাকারীদের শাস্তি, রাজাকারদের সম্পদ বাজেয়াপ্ত, তাদের সন্তানদের সরকারি চাকরির জন্য অযোগ্য ঘোষণা ও যারা চাকরিতে আছেন তাদের বরখাস্ত, মুক্তিযোদ্ধাদের সাংবিধানিক স্বীকৃতি ও তাদের পরিবার রক্ষায় আইন প্রণয়ন এবং সরকারি চাকরিতে মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তান ও নাতি-নাতনিদের বয়সসীমা আনুপাতিকভাবে বাড়ানো।

 

 

০৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০৯:৪৯:৩২