বারবার মৃত্যুর মুখোমুখি হয়েছি, ভয় করিনি: প্রধানমন্ত্রী
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম
অ+ অ-প্রিন্ট


আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পুনরায় নৌকায় ভোট দিয়ে দেশ সেবার সুযোগ করে দিতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।  আজ বুধবার কোটালীপাড়ায় শেখ লুৎফর রহমান আদর্শ সরকারি কলেজ মাঠে আয়োজিত জনসভায় তিনি এ কথা বলেন।     

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করতে চাই। যেখানে যাকে নৌকা মার্কার প্রার্থী করা হয়েছে তাদের ভোট দেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আপনার স্বাধীনতা পেয়েছেন। বাংলাদেশ আজ মাথা উঁচু করে চলতে পারে। আবারও মা-বোনদের কাছে ভোট চাই। নৌকায় ভোট দিয়ে কেউ বঞ্চিত হয় না।’

তিনি আরও বলেন, স্বাধীনতার সুফল জনগণের কাছে পৌঁছে দেওয়ার লক্ষে কাজ করছে আওয়ামীলীগ। আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় এলে জনগণের জন্য কাজ করে। দেশে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষা করতে হলে নৌকার বিকল্প নেই। তাই পুনরায় দেশ সেবার সুযোগ চাইলেন তিনি।     

তিনি বলেন, বারবার মৃত্যুর মুখোমুখি হয়েছি, ভয় করিনি। কখনো ষড়যন্ত্রকে ভয় করিনি। কেন ভয় পাইনি? কারণ নিজের আত্মবিশ্বাস ছিল। আমার বাবার মতো বাংলার মানুষের জন্য কাজ করছি।  বললেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, আমার পিতার হত্যাকাণ্ডের পর আমি দেশে আসতে পারিনি। আমি যাতে দেশে আসতে না পারি সেজন্য আমাকে নানা বাধা দেয়া হয়েছে। এরপর ১৯৮১ সালে দেশে আসি। আমি তখন নিঃস্ব-রিক্ত। আপনাদের মাঝে খুঁজে পেয়েছিলাম আমার হারানো বাবার স্নেহ, হারানো মায়ের স্নেহ।

শেখ হাসিনা বলেন, আমাকে মারার জন্য কোটালীপাড়ায় বোমা পুঁতে রাখা হয়েছিল। যে বোমা পুঁতেছিল সেও কোটালীপাড়ার সন্তান। কিন্তু যে বোমা খুঁজে পেয়েছিল সে একজন চায়ের দোকানদার। আমি ওই সময় প্রাণে বেঁচে গিয়েছি। সে চা দোকানদার বোমা উদ্ধার করেছিল আমি তার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই। আমি জানি সে আজকে এই জনসভায় উপস্থিত আছে।

আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, শুধু এখানেই নয়। আমাকে মারার জন্য ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা করা হয়।  আইভী রহমানসহ আমাদের ২২ জন নেতাকর্মী মৃত্যুবরণ করেন। খোদার কি ইচ্ছে আমাকে বাঁচিয়ে রেখেছে। এভাবে বার বার আমাকে কখনো বোমা, কখনো গুলির সম্মুখীন হতে হয়েছে।  

তিনি আরও বলেন, আমার হৃদয়ে একটা আত্মবিশ্বাস ছিল। আমার ভিতরে বিশ্বাস ছিল। যে বাংলার মানুষের জন্য আমার বাবা এতো কষ্ট করে গেছে, জীবন দিয়ে গেছে, আমার পরিবার জীবন দিয়ে গেছে; সে বাংলার মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন আমরা করবো এবং বাংলার মানুষের ঘরে ঘরে স্বাধীনতার সুফল পৌঁছে দিব। মানুষের জীবন পরিবর্তন করবো। এ প্রতিজ্ঞা নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি, কাজ করে যাবো।


১২ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১৯:৩০:১৫