জামায়াতে ইসলামী কোন প্রতীকে নির্বাচনে করবে..জানতে চান কূটনীতিকরা
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
ঢাকায় নিযুক্ত বিভিন্ন দেশের কূটনীতিকদের সঙ্গে জরুরি বৈঠকে খালেদা জিয়ার মামলাসহ আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন, দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি, মানবাধিকার পরিস্থিতি, বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডসহ সার্বিক বিষয়ে কূটনীতিকদের অবহিত করেন দলের জ্যেষ্ঠ নেতারা। নেতাকর্মীদের নামে মামলার পরিসংখ্যানও তাদের হাতে তুলে দেয়া হয়। সোমবার বিকেল ৪টায় বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশান রাজনৈতিক কার্যালয়ে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বৈঠকে উপস্থিত বিএনপির এক শীর্ষ নেতা এই প্রতিবেদক বলেন, বৈঠকে কূটনীতিকদেরকে জানানো হয় যে, আইনগতভাবে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া নির্বাচন করতে পারবেন। এই কারণে আমরা তার জন্য মনোনয়ন ফরম তুলেছি। এছাড়া গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের জন্য বিএনপি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছে, সেবিষয়টিও কূটনীতিকদেরকে অবহিত করে দলটি। সূত্রটি আরো জানায়, বিএনপির বৈঠকে কূটনীতিকদের কাছে উদ্বেগ প্রকাশ করে যে, এখনও নির্বাচনী পরিবেশ ও লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নাই। এখনও গ্রেপ্তার হচ্ছে। এই কথার পরিপ্রেক্ষিতে কূটনীতিকরা বলেন, তোমরা তো ৭ দফা দাবি দিয়েছিলে। এই দাবির মধ্যে তোমরা বন্দি সকল নেতাকর্মীদের মুক্তি চেয়েছিলে। তোমাদের রেকর্ড কী বলে, কতজন মুক্তি পেয়েছে। বিএনপি বলে, এ পর্যন্ত বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীকে মুক্তি দিয়েছে।

সূত্রটি জানায়, বৈঠকে কূটনীতিকরা বিএনপির কাছে জানতে চান, জামায়াতে ইসলামী কোন প্রতীকে নির্বাচনে করবে। উত্তরে বিএনপি বলে, এখনও বিষয়টি ঠিক হয়নি। কারণ জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট এবং ২০ দলীয় জোট আছে। সুতরাং দেখা যাক। পরবর্তিতে এটা ঠিক করা হবে। তখন সবাই জানতে পারবে।

বৈঠকে বিএনপির পক্ষে দলটির নেতা ড. মঈন খান, ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, এনাম আহমেদ চৌধুরী, সাবিহ উদ্দিন আহমেদ, শামা ওবায়েদ, ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা, জেবা খানসহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে পাকিস্তান, তুর্কি, নরওয়ে, অস্ট্রিলিয়া, স্পেন, জাপান, চীন, সুইডেন, সুইজারল্যান্ড, জার্মানি, ইন্দোনেশিয়া, ভিয়েতনামসহ বিভিন্ন দেশের কূটনীতিকরা উপস্থিত ছিলেন।

 

১২ নভেম্বর, ২০১৮ ২৩:১৭:১০