৪ জঙ্গির মধ্যে তিনজনই মানারাত বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম
অ+ অ-প্রিন্ট


টানা ৪০ ঘণ্টা চেষ্টার পর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে নরসিংদীর মাধবদী আস্তানার দুই নারী জঙ্গি আত্মসমর্পণ করলো। বুধবার (১৭ অক্টোবর) দুপুর আড়াইটায় বাড়িটি থেকে একে একে এই দুই নারী বেরিয়ে আনা হয়। পরে এম্বুলেন্সে করে তাদের নিয়ে যাওয়া হয়।  টানা ৪২ ঘন্টার চেষ্টায় জঙ্গদের আত্মসমর্পণ। এই লম্বা সময় তাদের বাড়ি থেকে বের করে আনতে একের পর এক কৌশল বদলাতে হয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষীবাহিনীকে। এমনকি তাদেরকে রাজি করাতে কাজ করতে হয়েছে বিশেষ সাইক্রেস্টিস টিমকে। অভিযান সমাপ্ত করে কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের প্রধান জানান, আত্মসমর্পণকারী দুজন নব্য জেএমবির সক্রিয় সদস্য। এদের একজন মারিয়া আক্তার মৌ এবং আরেকজন খাদিজা আক্তার মেঘনা। এদের মধ্যে খাদিজার স্বামী নব্য জেএমবির শীর্ষ স্থানীয় নেতা এবং প্রস্তুতি চলছিল সাংগঠনিক সিদ্ধান্তে মৌয়ের বিয়ের।

কাউন্টার টেররিজম ইউনিট প্রধান মনিরুল ইসলাম বলেন, 'ফাইনালি তারা যদিও চেষ্টা করেছিল ব্লাষ্ট করার এবং একটা ব্লাষ্ট হয়েছিল কিন্তু আমাদের সোয়াতের তত্ত্বাবধানে তাদের দুজনকে আত্মসমর্পণ করায়।'

তিনি জানান, এদের সঙ্গে যোগাযোগ ছিল মঙ্গলবার শেখের চরে নিহত নব্য জেএমবির মিডিয়া শাখার প্রধান আবু আব্দুল্লাহ ও তার স্ত্রী আকলিমা আক্তার মনির সঙ্গে। মৌ, খাদিজা ও মনি ছিলেন পরস্পর বন্ধু। তারা ছিলেন মানারাত বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি বিভাগের শিক্ষার্থী। তারা তিনজনই ১৬ সালের ১৬ আগস্ট জঙ্গি সম্পৃক্ততার অভিযোগে মিরপুর থেকে গ্রেফতার হন পরে জামিনে মুক্তি পান।

মনিরুল ইসলাম বলেন, 'গতকাল যে মনি নিহত হয়েছেন এবং আজকে যে দুজন আটক করা হয়েছিল এরা তিনজনই ২০১৬ সালে হলি আর্টিজানের পর র‍্যাবের হাতে গ্রেফতার হয়। এরপর তারা জামিনে ছাড়া পেয়ে পরিবার থেকে পালিয়ে তারা বিভিন্ন জায়গায় হিজরত করেছিল। এরা মানারাত বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ছিল।'

 


১৭ অক্টোবর, ২০১৮ ১৯:২৪:৩৩