আপনি জিতুন আমরা আসবো, শেখ হাসিনাকে মমতা
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
ফাইল ছবি
পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, বাংলাদেশ ভালো থাকলে আমরা ভালো থাকি। আমরা ভালো থাকলে বাংলাদেশ ভালো থাকে। অর্থাৎ বাংলাদেশ ভালো থাকলে ভারত ভালো থাকে। আজ সোমবার বিকেলে গণভবনে ভেড়ামারায় নবনির্মিত ৫০০ মেগাওয়াট এইচভিডিসি ব্যাক টু ব্যাক স্টেশন সেকেন্ড ব্লক-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ভারতের এ নেত্রী এ একথা বলেন। স্টেশনটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

ভিডিও কনফারেন্সে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বাংলাদেশে আসার আমন্ত্রণ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জবাবে মমতা বলেছেন, ‘আপনি জিতুন আমরা আসব।’

মতা বলেন, ‘আমি মনে করি, বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক চিরকালেই খুব ভালো। সীমানা নির্ধারণ চুক্তি থেকে শুরু করে ছিটমহল বিনিময়, ইন্দো-বাংলাদেশ বাস সার্ভিস, রেল সার্ভিস, টেলিকমিউনিকেশন সার্ভিস, ইন্দো-বাংলাদেশ সড়ক— প্রতিটিই একটি করে যুগান্তকারী কর্মসূচি। এসবের মধ্য দিয়েই দুই দেশের সম্পর্ক আরও ভালো হবে।’

ভারতীয়দের পক্ষ থেকে বাংলাদেশকে কিছুদিন আগেই চলে যাওয়া ঈদুল আজহার পাশাপাশি আসন্ন শারদীয় পূজার শুভেচ্ছা জানান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, ‘এটাই আমাদের সম্পর্ক। এটাই দুই দেশের সম্পর্ক। বাংলাদেশ ভালো থাকলে আমরা ভালো থাকি। আমরা ভালো থাকলে বাংলাদেশ ভালো থাকে। সুতরাং দুই দেশের সম্পর্ক আরও বাড়ুক, আরও এগিয়ে যাক।’

মমতা বলেন, ‘আমি আরও বলি— সারে জাহাঁ সে আচ্ছা, হিন্দুস্তান হামারা। আর বাংলাদেশকে বলি— আজি বাংলাদেশের হৃদয় হতে কখন আপনি/ তুমি এই অপরূপ রূপে বাহির হলে জননী/ ওগো মা তোমায় দেখে দেখে আঁখি না ভরে/ তোমার দুয়ার আজি খুলে গেছে সোনার মন্দিরে/ ওগো মা…।’

ভাষাভাষীর দিক থেকে বাংলার স্থান সারাবিশ্বে পঞ্চম এবং এশিয়ার মধ্যে শীর্ষে— এ তথ্য উল্লেখ করে মমতা বলেন, এই ভাষাও আমাদের বন্ধন। এই বন্ধন, দুই দেশের সম্পর্ক ভালো হোক।

এ সময় ‘জয় বাংলা’, ‘জয় ভারত’ বলে বক্তব্য শেষ করেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী।

পরে আখাউড়া-আগরতলা ডুয়েল গেজ রেল লাইন নির্মাণ কাজ, কুলাউড়া-শাহবাজপুর লাইন সংস্কার প্রকল্প এবং বাংলাদেশের জাতীয় গ্রিডে ভারত থেকে ভেড়ামারায় নবনির্মিত ৫শ মেগাওয়াট এইচভিডিসি ব্যাক টু ব্যাক স্টেশন সেকেন্ড ব্লকের উদ্বোধন শেষে ভিডিও কনফারেন্সে কথা হয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মধ্যে।

এ সময় শেখ হাসিনা মমতাকে বলেন, ‘কেমন আছেন?’

জবাবে মমতা বলেন, ‘আমি ভালো আছি। হ্যাঁ, হ্যাঁ, আমি ভালো আছি।

এরপর শেখ হাসিনা বলেন, ‘খুব ভালো লাগল। একটা বিরাট কাজ হলো। আরও ১ হাজার মেগাওয়াটের জন্যও কাজ হবে আশা করি।’

এর জবাবে মমতা বলেন, ‘আমরা রাজি আছি। এটা আপনাদের পক্ষে ভালো কাজে লাগবে।’

এরপর মমতা গেল ঈদ ও আগাম শারদীয় শুভেচ্ছা জানালে শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশে আবার বেড়াতে আসবেন। সেটাই চাই।

এর পরিপেক্ষিতে মমতা বলেন, ‘নিশ্চয়ই। আপনি জিতুন, আমরা আসব।’

এসময় গণভবনে উপস্থিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জোরে হেসে ওঠেন। উপস্থিত সবাইও করতালি দিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে অভিনন্দন জানান।

ভিডিও কনফারেন্সে গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর দুই পাশে প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা তৌফকি-ই-ইলাহী চৌধুরী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী, রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক, বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ উপস্থিত ছিলেন।

অন্যদিকে, ভারতের প্রধানমন্তী নরেন্দ্র মোদির পাশে ছিলেন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সূচনা বক্তব্য রাখেন ভারতের বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ। এরপর বাংলাদেশের পক্ষ থেকে সূচনা বক্তব্য রাখেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী। পরে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব ভিডিও কনফারেন্সে সংযুক্ত হয়ে বক্তব্য রাখেন।

প্রকল্পগুলোর উদ্বোধন শেষে প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে তিন প্রকল্প এলাকায় সংযুক্ত হয়ে কথা বলেন।

 

 

১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ২৩:৩১:৫৬