ঢাকায় ডিবি পরিচয়ে তুলে নেয়া ওরা ১১ জন এখন কোথায়?
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
ঢাকায় ডিবি পুলিশের মাদক বিরোধী অভিযান। নিখোঁজদের ব্যাপারে কোন তথ্য দিচ্ছে না ডিবি পুলিশ।
বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা থেকে গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) পরিচয়ে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল প্রায় ৪০ জনকে। এদের বেশিরভাগকেই পরে ছেড়ে দেয়া হলেও ১১ জন এখনো নিখোঁজ। তারা কোথায়, কেমন আছে - কেউ বলতে পারছে না।

এই নিখোঁজ ১১ জনের পরিবারের সদস্যরা ধারণা করছেন, এরা হয়তো এখনো ডিবি পুলিশের হেফাজতেই আছে। যারা ছাড়া পেয়েছে তাদের কাছ থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে এরকমটাই সন্দেহ করছেন তারা। কিন্তু বাংলাদেশের পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগে এই বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে কোন তথ্য পাওয়া যায় নি। গত চারদিন ধরে ঢাকার মিন্টো রোডের ডিবি অফিসের সামনে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত বসে রয়েছেন মানসুর রহমান। মি.রহমানের দুই ছেলেকে গত ৫ তারিখে ডিবি পরিচয়ে মহাখালির একটা মেস থেকে তুলে নিয়ে যায় ১০ থেকে ১২ জন লোক।

টাঙ্গাইল থেকে সেই খবর পেয়ে তিনি ঢাকায় ছুটে আসেন। এর মধ্যে তার এক ছেলেকে ছেড়ে দিলেও আরেক ছেলে ছাড়া পায় নি। আটক থাকা সাইফুল্লাহ বিন মানসুরের মা হামিদা বেগম টেলিফোনে টাঙ্গাইল থেকে বলছিলেন, যদি তার ছেলে কোন অপরাধ করে থাকে সেটা আইনের মাধ্যমে বিচার করা হোক। যে ১১জন নিখোঁজ রয়েছেন তাদের মধ্যে একজন ইফতেখার আলম। ঢাকা পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের ছাত্র তিনি। নোয়াখালিতে বাড়ি। ঢাকার একটা মেসে থাকতেন। তার মা জান্নাতুল ফেরদৌস বলছিলেন তার ছেলে ঢাকায় পড়াশোনা করতে গেছেন কিন্তু কেন তাকে এভাবে আটক করা হল তার কিছুই তিনি জানেন না। কুমিল্লার রফিক উদ্দিন বলছিলেন তার ছেলেকে যে আটক করেছে সেটা আটক থাকা থেকে বেরিয়ে আসা একজন নিশ্চিত করেছে। কিন্ত এখন তাদের নিয়ে কি করা হবে সে ব্যাপারে একেবারেই অন্ধকারে রয়েছে পরিবারগুলো।

এদিকে ছাড়া পাওয়া একজন নাম প্র্রকাশ না করার শর্তে বিবিসি বাংলাকে বলেছেন তাদের ডিবি অফিসে জিজ্ঞাসাবাদের সময় জানতে চা্ওয়া হয়েছে কোটা বিরোধী আন্দোলন বা নিরাপদ সড়ক দাবিতে যে আন্দোলন হল সেটাতে জড়িত ছিল কীনা।

একই সাথে প্রত্যেকের মোবাইল ফোন জব্দ করে, সামাজিক যোগাযোগের সব মাধ্যমের পোস্ট চেক করেছে। তাদেরকে মারধোর করা হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি। এই বিষয়ে গোয়েন্দা বিভাগে যোগাযোগ করা হলে কোন তথ্য পাওয়া যায় নি। -বিবিসি বাংলা

 

০৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ২৩:৫২:৫৩