'আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি অরাজকতা সৃষ্টির চেষ্টা করছে'
ওবায়দুল ইসলাম, সৈয়দপুর (নীলফামারী)
অ+ অ-প্রিন্ট


সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি আসন্ন জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে দেশে অরাজকতা সৃষ্টির চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ করেছেন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ট্রেনযাত্রায় উত্তরাঞ্চলে প্রচারণা শেষে রোববার  সকাল সাড়ে ১০টায় ঢাকার উদ্দেশে রওয়ানা হওয়ার আগে নীলফামারীর সৈয়দপুর বিমানবন্দরে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন। নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রচারণার জন্য গত ৮ সেপ্টেম্বর সকালে ঢাকা থেকে ট্রেনে উত্তরাঞ্চলে যান ওবায়দুল কাদেরসহ আওয়ামীলীগের শীর্ষ নেতারা। পথে বিভিন্ন স্টেশনে সভা করেন তারা। এসব সভায় সরকারের উন্নয়ন কার্যক্রম তুলে ধরার পাশাপাশি নেতাকর্মীদের নির্বাচনের প্রস্তুতি নেয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়। সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে সেতুমন্ত্রী বলেন, ১০ বছর ধরে বিএনপি আন্দোলন করতে পারেনি। দলটির নেত্রী খালেদা জিয়া কারাগারের বাইরে থাকার সময়ও জনগণ তার ডাকে সাড়া দেয়নি। এখন নির্বাচন থেকে পালানোর জন্য বিএনপির নেতাকর্মীরা অস্থিরতা সৃষ্টির চেষ্টা করছে। আমাদের কাছে খবর আছে, দেশে-বিদেশে ২০১৪ সালের মতো কিভাবে সহিংসতা করা যায়, তা নিয়ে ষড়যন্ত্র চলছে। তবে এসব করে লাভ হবে না। আমরা জনগণকে নিয়ে তা প্রতিহত করবো। এক প্রশ্নের উত্তরে ওবায়দুল কাদের বলেন, নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার মাত্র দেড়-দু’মাস বাকি। এ সময়ে দেশে কোনো অস্থিরতা আছে? কোনো অশান্তি আছে? আমাদের প্রতিপ তাদের বিষোদগারের মধ্যে অশান্তি আর অস্থিরতা ছড়াতে চাইছে। কিন্তু দেশের জনগণের মধ্যে কোনো অস্থিরতা নেই। আওয়ামী লীগের নির্বাচনী প্রচারণায় জনতার ব্যাপক সাড়া দেখে বিরোধীরা সহ্য করতে পারছে না জানিয়ে কাদের বলেন, আমাদের নির্বাচনী ট্রেনযাত্রার পথসভায় জনতার উপস্থিতি দেখে তারা তো বুঝতে পেরেছে, এদেশে বিএনপি ও তাদের দোসরদের নির্বাচনে জয়লাভ করা সম্ভব নয়। তারা নির্বাচনে জয়লাভ করতে পারবে না। নির্বাচনে হেরে যাওয়ার আশঙ্কা থেকে তাদের এখন টার্গেট হচ্ছে নির্বাচন থেকে কিভাবে পালানো যায়। নির্বাচন থেকে পালাতে তারা সেই নাশকতার ষড়যন্ত্র করছে। খালেদার মুক্তি ছাড়া নির্বাচন হতে দেয়া হবে না বলে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বক্তব্যের বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে ওবায়দুল কাদের বলেন, গতকালের জনস্রোত আপনারা দেখেছেন। এই জনস্রোত তো ১০ বছরেও বিএনপি মাঠে নামাতে পারেনি। ১০ বছরে ১০ মিনিটও তারা রাস্তায় নামেনি। বিএনপি বিরোধীদল হওয়ারও যোগ্যতা হারিয়েছে মন্তব্য করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, আমার তো মনে হয় এদেশে যদি কোনো ব্যর্থ বিরোধীদলের নাম নিতে হয়, তাহলে বিএনপিকে চিরকাল এ দেশের মানুষ মনে রাখবে? বিমানবন্দরে আরও উপস্থিত ছিলেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, বিএম মোজাম্মেল হক, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী ও উপ-দফতর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া।

 


০৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৫:২৬:০৬