বিচার চাওয়ার অধিকারটুকুও আমার ছিল না: প্রধানমন্ত্রী
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম
অ+ অ-প্রিন্ট
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, স্বাধীনতার পর অর্থনীতি, শিক্ষা, স্বাস্থ্যসহ সব ক্ষেত্রে বাংলাদেশ যখন এগিয়ে যাচ্ছিল তখন এলো বড় ধরণের আঘাত। জাতির পিতাকে হত্যা করা হলো। শুধু জাতির পিতা নয়, আমার মা-ভাই-স্বজনসহ ১৮ জনকে ১৫ আগস্ট হত্যা করা হয়। এই হত্যার পর আমাকে দেশে আসতে দেওয়া হয়নি। বিচার চাওয়ার অধিকারটুকুও আমার ছিল না। বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় বিদ্যুৎ ও জ্বালানী সপ্তাহের উদ্বোধন করে তিনি এসব কথা বলেন।

বঙ্গবন্ধু হত্যার পরিবর্তী প্রেক্ষাপট তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, বাবা-মাসহ স্বজনদের হারিয়ে আমরা যখন শোকে কাতর তখন আমাদের দেশে আসাও নিষিদ্ধ ছিল। আমার ছোট বোন শেখ রেহেনার পাসপোর্ট বাতিল করা হয়। ১৯৮১ সালে আমাকে আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত করা হয়। এরপর যখন দেশে আসি তখন ধানমন্ডির ৩২ নম্বরের বাড়িতে যেতে দেওয়া হয়নি। বাবা হত্যার মামলাও করতে দেওয়া হয়নি। বিচারের অধিকারটুকুও আমার ছিল না।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাতির জনকের খুনিদের হত্যাকারীরা এদেশে বারবার পুরস্কৃত হয়েছে। বঙ্গবন্ধু হত্যার পর যারা ক্ষমতায় এসেছিল তারা ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ জারি করে জাতির জনকের খুনিদের দায়মুক্তি দিয়েছিল। শুধু তাই নয়, তাঁদেরকে বিভিন্ন দূতাবাসে চাকরির ব্যবস্থা করা হয়।

 

০৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১১:৫৩:০১