বিমসটেক শীর্ষ সম্মেলন : নেপালে পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম
অ+ অ-প্রিন্ট
বিমসটেকের চতুর্থ শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দিতে নেপালে পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।সকাল সাড়ে নয়টায় প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী বাংলাদেশ বিমানের বিশেষ ফ্লাইটটি কাঠমান্ডু ত্রিভূবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌছালে সেখানে তাকে স্বাগত জানান নেপালের উপ-প্রধানমন্ত্রী ঈশ্বর পোখারেল এবং নেপালে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মাশরাফি বিনতে শামস। পরে প্রধানমন্ত্রীকে মোটর শোভাযাত্রা সহকারে হোটেল সোয়ালটি ক্রাউন প্লাজায় নিয়ে যাওয়া হয়।

এর আগে আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা ৫ মিনিটে বাংলাদেশ বিমানের একটি ভিভিআইপি ফ্লাইটে ঢাকা থেকে কাঠমান্ডুর পথে রওনা হন প্রধানমন্ত্রী। এদিকে, দুপুরে নেপালের রাষ্ট্রপতির বাসভবন শীতল নিবাসে রাষ্ট্রপতি বিদ্যা দেবী ভাণ্ডারির সঙ্গে সাক্ষাতের কথা রয়েছে শেখ হাসিনার। সেখানে নেপালের রাষ্ট্রপতির দেওয়া মধ্যাহ্নভোজেও অংশ নেবেন প্রধানমন্ত্রী। পরে, বিকালে প্রধানমন্ত্রী সোয়ালটি ক্রাউন প্লাজা হোটেলে অনুষ্ঠিত বিমসটেক শীর্ষ সম্মেলনের উদ্বোধনী পর্বে যোগ দেবেন। এছাড়া আগামীকাল সকালে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে দ্বিপাক্ষীক বৈঠক করার কথা রয়েছে শেখ হাসিনা।

জানা গেছে, আঞ্চলিক সহযোগিতার অংশ হিসেবে বিমসটকভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে বিদ্যুৎ বাণিজ্য করার জন্য একটি পাওয়ার গ্রিড ইন্টার-কানেকশন চুক্তি সই হতে যাচ্ছে।

আগামী শুক্রবার- ৩১ আগস্ট এটি সই হবে বলে জানা গেছে। চতুর্থ বিমসটেক শীর্ষ সম্মেলন বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার- ৩০ ও ৩১ আগস্ট নেপালের কাঠমান্ডুতে অনুষ্ঠিত হবে। এর দ্বিতীয় দিনে মন্ত্রীপর্যায়ের বৈঠেকে পাওয়ার গ্রিড ইন্টার-কানেকশন চুক্তি সই হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই সম্মেলনে যোগ দিতে বৃহস্পতিবার সকালে কাঠমান্ডুর উদ্দেশ্যে ঢাকা ছাড়বেন। বাংলাদেশ, নেপাল, ভুটান, ভারত, মিয়ানমার, থাইল্যান্ড ও শ্রীলঙ্কা বিমসটেকের সদস্য।

বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে পাওয়ার গ্রিড ইন্টার-কানেকশন আছে এবং এর মাধ্যমে ঢাকা বিদ্যুৎ আমদানি করে থাকে। এ বিষয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সার্ক ও বিমসটেক মহাপরিচালক সামসুল হক বলেন, এই পাওয়ার গ্রিড ইন্টার-কানেকশন চুক্তি বুধবার কাঠমান্ডুতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকে চূড়ান্ত হয়েছে। তিনি বলেন, চুক্তিটি আগামী শুক্রবার সই করা হবে এবং বাংলাদেশের পক্ষে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী এতে সই করবেন। সামসুল হক বলেন, এটি নীতিগত সিদ্ধান্ত এবং এর কারিগরি বিষয়গুলি স্ব স্ব দেশের বিদ্যুৎ বিভাগ নির্ধারণ করবে।

আরেকজন কর্মকর্তা বলেন, এর মাধ্যমে প্রতিবেশী দেশগুলি থেকে বিদ্যুৎ আমদানি করা সম্ভব হবে। বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে পাওয়ার গ্রিড ইন্টার-কানেকশন আছে এবং এর মাধ্যমে ঢাকা ৬০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানি করছে। এই চুক্তির অধীনে নেপাল, ভুটান এমনকি মিয়ানমার থেকেও বাংলাদেশ বিদ্যুৎ আমদানি করতে পারবে বলে তিনি জানান।

 

৩০ আগস্ট, ২০১৮ ১০:২১:০৩