দক্ষিণ চীন সাগরে মার্কিন যুদ্ধ জাহাজ, উত্তেজনা
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
ক্ষেপনাস্ত্র-বাহী মার্কিন যুদ্ধজাহাজ ইউএসএস হিগিনস (ফাইল ফটো)
দক্ষিণ চীন সাগরে একটি বিতর্কিত এলাকায় টহল দিতে গেলে চীন যুদ্ধজাহাজ পাঠিয়েছে। ক্ষেপণাস্ত্র-বাহী জাহাজ- ইউএসএস হিগিনস এবং ক্রুজার অ্যান্টাইট্যাম দক্ষিণ চীন সাগরে পারাসেল নামক একটি দ্বীপের ১২ নটিক্যাল মাইলের ভেতরে পৌঁছুনর পর তীব্র প্রতিক্রিয়া হয়েছে চীনে। চীনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলছে আমেরিকান যুদ্ধজাহাজ বিনা অনুমতিতে চীনের সমুদ্র-সীমায় ঢুকে তাদের 'সার্বভৌমত্ব' ক্ষুণ্ণ করেছে এবং স্পষ্টতই চীনকে 'উস্কানি' দিচ্ছে।

চীন দাবি করে প্যারাসেল দ্বীপটি তাদের, যদিও ভিয়েতনাম এবং তাইওয়ানও দ্বীপটির মালিকানা দাবি করে।চীন জানিয়েছে, মার্কিন যুদ্ধ জাহাজ দুটোকে দ্রুত চলে যেতে বলার জন্য যুদ্ধ জাহাজ এবং যুদ্ধ বিমান পাঠানো হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের নৌবাহিনী বার্তা সংস্থা রয়টরসের কাছে নিশ্চিত করেছে তাদের দুটো জাহাজ দক্ষিণ চীন সাগরের একটি বিতর্কিত দ্বীপের কাছে কাছে গেছে।

দক্ষিণ চীন সাগরে বিতর্কিত প্যারাসেল চেইনের একটি দ্বীপ। চীনের নিয়ন্ত্রণে থাকলেও, তাইওয়ান এবং ভিয়েতনামও মালিকানা দাবি করে। ১২ মে স্যাটেলাইট থেকে তোলা ছবি থেকে দেখা যায় এই দ্বীপেই চীনা বিমানবিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র এবং জাহাজ ধ্বংসকারী ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েন করেছে। তারপরই হাওয়াই দ্বীপের একটি যৌথ সামরিক মহড়া থেকে চীনকে বাদ দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয় আমেরিকা।

এরপর আজ (রোববার) দক্ষিণ চীন সাগরে মার্কিন যুদ্ধ জাহাজের তৎপরতার খবর পাওয়া যাচ্ছে। দক্ষিণ চীন সাগরে চীনের তৎপরতা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র বহুদিন ধরে নাখোশ। চীন বাণিজ্যের জন্য গুরুত্বপূর্ণ এই সাগরে তাদের প্রভাব বিস্তারে নানা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। সাগরের মাছে বিভিন্ন ডুবো চরে বেশ কিছু কৃত্রিম দ্বীপ তৈরি করে সামরিক স্থাপনা তৈরি করেছে। কিন্তু আমেরিকা চীনের এই সার্বভৌমত্বের দাবি মানেনা। -বিবিসি বাংলা

 

২৭ মে, ২০১৮ ২৩:১৬:০৯