খালেদা জিয়াকে কারাগারে যে কক্ষে রাখা হয়েছে তা বাসযোগ্য নয় : রিজভী
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম
অ+ অ-প্রিন্ট
বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী


বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, খালেদা জিয়াকে ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের পুরাতন কারাগারের যে কক্ষে রাখা হয়েছে তা বাসযোগ্য নয়। কক্ষটি নানা অসুখ-বিসুখের আক্রমণের কেন্দ্রস্থলে পরিণত হয়েছে। সেখানেই পোকামাকড়ের দংশনে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন তিনি। বুধবার বেলা ১২টায় নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব অভিযোগ করেন তিনি।

খালেদা জিয়া কারাগারে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েছেন জানিয়ে রিজভী বলেন, খালেদা জিয়ার ঘাড়ে প্রচণ্ড ব্যথা। এ কারণে তার বাম হাতটা শক্ত হয়ে যায়। এ ছাড়া তার দুই পা ভারী ও ফুলে উঠেছে। এছাড়া কিছু দিন আগে তার চোখে অস্ত্রোপচার হয়েছে। চোখ দুটো সারাক্ষণ জ্বালাপোড়া করে। দেয়াল থেকে ঝরেপড়া সিমেন্ট ও বালির কারণে চোখের অবস্থা আরও খারাপ হচ্ছে। ব্যথায় চোখ সবসময় লাল হয়ে থাকে।

তিনি বলেন, গতকাল মঙ্গলবার পুরান ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারে খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন তার নিকটাত্মীয়রা। কারাগারে দেশনেত্রীর কক্ষটি বসবাসের অযোগ্য। অসংখ্য পোকামাকড় রয়েছে সেখানে। এসব পোকামাকড়ের দংশনে তিনি আরও বেশি অসুস্থ হয়ে পড়েছেন।

বিএনপির মুখপাত্র অভিযোগ করেন, বার বার দাবি করা সত্ত্বেও খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসার বন্দোবস্ত না করে দুঃসহ জীবনযাপনে বাধ্য করে তিলে-তিলে বিপন্ন করে তোলাই সরকারের মুখ্য উদ্দেশ্য। সরকারের নির্দেশিত চিকিৎসকদেরও পরামর্শ জেল কর্তৃপক্ষ কানে তোলেনি কারণ কর্তৃপক্ষের পিছনে দাঁড়িয়ে আছে সরকারি হুংকার।

চলমান মাদকবিরোধী অভিযানকালে প্রাণহানি নিয়েও মন্তব্য করেন রিজভী আহমেদ। তিনি অভিযোগ করেন, ক্ষমতাসীনদের পৃষ্ঠপোষকতায় সারা দেশে মাদক বিস্তার করেছে। সরকারের ছত্রছায়ায় গড়ফাদাররা অন্তরালেই রয়ে যাচ্ছে। কিন্তু মাদকবিরোধী অভিযানের নামে ক্রসফায়ারে মানুষ হত্যা করা হচ্ছে।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর চলমান মাদকবিরোধী অভিযানের নামে বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের সমালোচনা করেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব। তিনি বলেন, প্রকৃত বড় বড় মাদক ডিলাররা অন্তরালে থেকে যাচ্ছে কীভাবে? প্রভাবশালী মন্ত্রীদের বাড়িতে তাঁরা দেখা-সাক্ষাৎ করছেন। চারদিকে গভীর সংশয় দেখা দিয়েছে সরকারি এই মাদকবিরোধী অভিযান নিয়ে।

 


২৩ মে, ২০১৮ ১৯:৩৮:২৪