খালেদার মুক্তি ও নিরপেক্ষ সরকার হলেই নির্বাচনে যাবে বিএনপি
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
কূটনীতিকদের সঙ্গে বৈঠকে খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসা ও তার জামিন এবং খুলনা ও গাজীপুর সিটি নির্বাচনসহ নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার, নির্যাতনের চিত্র তুলে ধরেছেন বিএনপি নেতারা। নির্বাচনের আগে খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও নিরপেক্ষ সরকার হলেই নির্বাচনে অংশ নেবে বলে কূটনীতিকদের জানান বিএনপি নেতারা। আজ রোববার গুলশানে চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে ঢাকায় নিযুক্ত বিভিন্ন দেশের কূটনীতিকদের সঙ্গে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠকে গত শনিবার প্যারিসে সন্ত্রাসী হামলার নিন্দা জানানো হয়। বৈঠকে একজন কূটনীতিক প্রশ্ন করেন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি অংশ নেবে কি না? জবাবে বিএনপির পক্ষ থেকে বলা হয়, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে রাজনৈতিক উদ্দেশে ভিত্তিহীন মামলায় সাজা দেওয়া হয়েছে। তাকে ছাড়া কীভাবে আমরা নির্বাচনে যাব? নির্বাচনকালীন সময়ে নিরপেক্ষ সরকার না হলে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়। আর বিএনপি এখনও নিরপেক্ষ সরকার প্রশ্নে অনড় অবস্থানে। তাছাড়া খুলনা সিটি নির্বাচন কারচুপি হয় কি-না, গাজীপুরের নির্বাচন কী ধরনের পরিবেশে হয়; তাও দেখতে হবে। এরপর সিদ্ধান্ত নেব।

আরেকজন কূটনীতিক জানতে চান, খালেদা জিয়ার অবর্তমানে বিএনপি কীভাবে পরিচালিত হচ্ছে? জবাবে বিএনপি বলছে, চেয়ারপারসনের অনুপস্থিতিতে দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছে। 

বৈঠকে বিএনপির পক্ষে উপস্থিত ছিলেন- মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার  মোশাররফ, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আবদুল মইন খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা রিয়াজ রহমান, সাবিহ উদ্দিন আহমেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার নওশাদ জমির, কেন্দ্রীয় নেতা ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা, তাবিথ আউয়াল ও জেবা আহমেদ খান ।

 

 

১৩ মে, ২০১৮ ২৩:০৭:৩২