ইডেনের ছাত্রীকে এসিড ছোড়ার দায়ে একজনের যাবজ্জীবন
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম
অ+ অ-প্রিন্ট
ইডেন কলেজের ছাত্রী শারমিন আকতার আঁখিকে এসিড নিক্ষেপের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় এক আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও এক লাখ টাকা জরিমানা এবং অন্য আসামিকে খালাস দিয়েছেন আদলত। দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি হলেন মনির হোসেন, খালাস পেয়েছেন মাসুম। এ ছাড়া ছুরিকাঘাত করায় দণ্ডবিধির ৩২৪ ধারায় মনিরকে দুই বছরের কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায় তিন মাসের কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে। আদালত বলেছেন, জরিমানার টাকা মামলার ভিকটিম পাবেন। বৃহস্পতিবার ঢাকার প্রথম অতিরিক্ত জেলা দায়রা জজ প্রদীপ কুমার রায় এ রায় ঘোষণা করেন।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, ২০১৩ সালের ১৫ জানুয়ারি বাসা থেকে কলেজ যাওয়ার পথে রাজধানীর চানখারপুর এলাকায় পথরোধ করা হয় ইডেন কলেজের ছাত্রী শারমীন আখতার আঁখিকে। আসামি মনির তাকে বিয়ের প্রস্তাব দিলে রাজি না হলে তার মাথায় এসিড ঢেলে দেয়া হয়। এতে মুখের এক অংশ ঝলসে যায়। এ ঘটনায় তার ভাই বংশাল থানায় তিনজনকে আসামি করে একটি মামলা করেন। পরে ঐ বছর ১৪ মার্চ আসামি মনির ও মাসুমের নামে আদালতে চার্জশিট দেয় পুলিশ। ২১ জনের সাক্ষী ও দীর্ঘ শুনানি শেষে বৃহস্পতিবার বিকেলে ঢাকার প্রথম অতিরিক্ত জেলা দায়রা জজ আদালতের বিচারক রায় ঘোষণা করেন। রায়ে আসামি মনিরকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ১ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। আর অন্য আসামি মাসুমকে খালাস দেয় আদালত।

ঢাকা জেলা দায়রা জজ আদালতের বিশেষ পিপি মো. আনোয়ার উল্যা বলেন, মাসুম মিয়াকে আদালত খালাস দিয়েছেন এবং মনিরকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন। জরিমানার টাকা মামলার ভিকটিমকে দেয়ার আদেশ দিয়েছেন আদালত। আসামিপক্ষের আইনজীবী মো. লিয়াকত আলী বলেন, আমরা মনে করি এ রায়টি সঠিক হয়নি। এ কারণে আমরা উচ্চ আদালতে আপিল করব।

২৬ এপ্রিল, ২০১৮ ২৩:০৫:৩৩