যৌন হয়রানি: ছাত্রদের প্রতিরোধের মুখে বন্ধ তুরাগ পরিবহন
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম
অ+ অ-প্রিন্ট


গ্রেট তুরাগ পরিবহনের বাসে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযুক্তদের বিচার দাবিতে বিক্ষোভ করেছে সহপাঠীরা। শনিবার সকালে উত্তরা ইউনিভার্সিটির কম্পিউটার সায়েন্স বিভাগের ছাত্রী বাড্ডার লিংকরোড থেকে ক্যাম্পাসে আসার সময় এ ঘটনা ঘটে। শনিবার বেলা পৌনে একটার দিকে ওই ছাত্রী রাজধানীর বাড্ডা লিংক রোড থেকে তুরাগ বাসে ওঠেন উত্তরা যাওয়ার জন্য। তিনি মেয়েদের সংরক্ষিত আসনেই বসেছিলেন। এ সময় বাসে যাত্রী ছিল কম। তাদের মধ্যে যারা নেমে যান, তার বদলে আর কোনো নতুন যাত্রীকে বাসে না তোলায় সন্দেহ হয় ওই তরুণীর। পরে বাসটি যখন প্রায় খালি হয়ে যায় তখন চালকের সহকারী ওই তরুণীকে বাসের পেছনের আসনে বসতে বলেন। এতে সন্দেহ আরও বেড়ে যায়। এসময় ওই ছাত্রী ঝুঁকি নিয়ে বসুন্ধরা এলাকায় চলন্ত বাস থেকে লাফিয়ে নেমে পড়েন। পরে অন্য একটি বাসে বিশ্ববিদ্যালয়ে এসে সব খুলে বলেন তিনি। এই ছাত্রী উত্তরা ইউনিভার্সিটিতে পড়াশুনা করেন।

ঘটনার পর রোববার রাতেই উত্তরা পূর্ব থানায় মালিকপক্ষের সঙ্গে আলোচনায় বসেন শিক্ষার্থীরা। এসময় তারা অভিযুক্ত বাসচালক ও সহকারীকে পুলিশে দেয়ার দাবি জানান।  পরে উত্তরা পূর্ব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নূরে আলম সিদ্দিকীর হস্তক্ষেপে শিক্ষার্থীরা তুরাগ পরিবহনের মালিকপক্ষকে সোমবার বিকাল পর্যন্ত সময় বেঁধে দেন।

উত্তরা ইউনিভার্সিটির ছাত্র আকরাম হোসেন বলেন, আমরা রাস্তায় নেমে মেয়েদেরকে এভাবে হয়রানির শিকার আর দেখতে চাই না। আমাদের দাবি বাসে যৌন হয়রানির সঙ্গে জড়িত তুরাগ পরিবহনের বাসচালক ও হেলপারকে দ্রুত খুঁজে বের করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করতে হবে। অন্যথায় কঠোর আন্দোলন যাব।

এদিকে যৌন হয়রানির ঘটনায় রোববার গুলশান থানায় একটি মামলা করেন ওই ছাত্রীর স্বামী।


২৩ এপ্রিল, ২০১৮ ১৯:৪৬:২২