পরকিয়ার জেরে সন্তানকে পুড়িয়ে মারার অভিযোগ মায়ের বিরুদ্ধে
আড়াইহাজার (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি
অ+ অ-প্রিন্ট
পরকিয়ার জেরে নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে সন্তানকে আগুনে পুড়িয়ে মারার অভিযোগ ওঠেছে শেফালী নামের এক নারীর বিরুদ্ধে।

শুক্রবার ভোরে উপজেলার উচিৎপুরা ইউনিয়নের বাড়ৈপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত হৃদয় লিবিয়া প্রবাসী আনোয়ার হোসেনের বড় ছেলে। সে ৩৫নম্বর বাড়ৈপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র ছিল। আড়াইহাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এম এ হক গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। অভিযুক্ত শেফালী বেগমকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। পুলিশ বলছে , তিনি প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে হত্যার উদ্দেশ্যে সন্তানদের শরীরে আগুন দেয়ার কথা স্বীকার করেছেন। ওসি এম এ হক জানান, প্রায় ১১ বছর আগে বাড়ৈপাড়ার বিল্লালের ছেলে প্রবাসী আনোয়ার হোসেনের সাথে কেরানীগঞ্জের সুন্দর আলীর মেয়ে শেফালীর সাথে বিয়ে হয়। বিয়ের পর তাদের দুই পুত্র সন্তান জন্ম হয়।

তিনি জানান, আনোয়ার বিদেশে থাকার সময় পাশ্র্ববর্তী মোমেনের সাথে পরকীয়া জড়িয়ে পড়েন শেফালী। এ নিয়ে আনোয়ার তিন মাস আগে শেফালীর সাথে সমস্ত সম্পর্ক ছিন্ন করেন। কিন্তু শেফালী বিষয়টি না মেনে শ্বশুর বাড়িতেই থাকছিলেন।

ওসি জানান, স্বামীর প্রতি প্রতিশোধ নিতে শুক্রবার গভীর রাতে ঘুমন্ত অবস্থায় দুই সন্তান হৃদয় ও শিহাবকে কাঁথায় জড়িয়ে ম্যাচের কাঠি দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেন তিনি। এতে হৃদয়ের পুরো শরীর দগ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলে নিহত হয়। আরেক সন্তান অগ্নিদগ্ধ শিহাবকে (৭) উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বার্ণ ইউনিটে স্থানান্তর করা হয়। এ ঘটনার পর মা শেফালীকে পুলিশের হাতে তুলে দেন গ্রামবাসীরা।

তিন জানান, হৃদয়ের মৃতদেহ ময়না তদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জের মর্গে পাঠানো হয়েছে। শেফালীর প্রেমিক মোমেনকে খুঁজছে পুলিশ।

 

১৩ এপ্রিল, ২০১৮ ১১:৪৯:২৭