৪ মাসের জামিন পেলেন খালেদা জিয়া
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম
অ+ অ-প্রিন্ট


জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া চার মাসের জামিন পেয়েছেন। সোমবার দুপুরে বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সহিদুল করিমের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। তার বয়স ও শারীরিক অবস্থা বিবেচনা করে জামিন দেন আদালত। তবে এ সময়ের মধ্যে আপিল শুনানির জন্য প্রস্তুত করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সোমবার বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সহিদুল করিমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চ এই আদেশ দেন।  ৩২ দিন কারাবন্দি থাকার পর জামিন পেলেন তিনি।

জামিন আদেশ শুনতে দুুপুরের আগেই আদালতে ভীড় করেন দুই পক্ষের  আইনজীবীরা। দুপুরে এজলাসে আসেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ,ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ,ড.খন্দকার মোশাররফ হোসেনসহ কেন্দ্রীয় নেতারা। দুইপক্ষের আইনজীবীদের ভীড়ে কানায় কানায় ভরে উঠে এজলাস কক্ষ।দুপর দুইটার কিছু পরে এজলাসে আসেন বিচারকরা।দুইপক্ষের শুনানি শেষে আদেশ দেন হাইকোর্ট । এদিকে সকাল থেকেই আদালত প্রাঙ্গনে নেওয়া হয় কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

এর আগে রোববার সকালে নিম্ন আদালত থেকে নথি না আসায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন হওয়া না হওয়ার বিষয়টি সোমবার দুপুর দুইটায়  আদেশের জন্য রাখেন হাইকোর্ট। সংশ্লিষ্ট হাইকোর্ট বেঞ্চের সোমবারের কার্যতালিকার এক নন্বরে রাখা হয় এই মামলাটি।

রোববার দুপুর সোয়া ১২টার দিকে ৫৩৭৩ পৃষ্ঠার নথি টিনের বাক্সে তালাবন্দি অবস্থায় পাঠানো হয় উচ্চ আদালতে। নিম্ন আদালত থেকে বিশেষ ব্যবস্থায় পাঠানো এ নথি দুপুর একটা দিকে পৌঁছায় হাইকোর্টে। গত ২২ ফেব্রুয়ারি নথি চেয়ে নিম্ন আদালতকে আদেশ দেন হাইকোর্ট। জানানো হয় এই নথি পাওয়ার পর খালেদা জিয়ার জামিন বিষয়ে আদেশ দেবেন আদালত।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের দণ্ড মাথায় নিয়ে বিএনপির চেয়ারপারসন গত ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে কারাগারে আছেন। হাইকোর্টের আদেশ অনুযায়ী ১৫ দিনের মধ্যে নথি আসার সময়সীমা শেষ হয়েছে বিষয়টি খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা আদালতের নজরে আনেন গত বৃহস্পতিবার। পরে আদালত জামিন বিষয়ে শুনানির জন্য রোববার দিন ঠিক করেন হাইকোর্ট।


১২ মার্চ, ২০১৮ ১৫:২০:৫৩