শিশু জয়নবের ধর্ষক ও হত্যাকারীকে গ্রেপ্তারের দাবি করছে পুলিশ
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
গত ৪ জানুয়ারি কোরান শিক্ষার ক্লাসে যাবার পথে নিখোঁজ হয় জয়নব।
পাকিস্তানের কসুরে জয়নব আনসারী নামের ছয় বছরের যে কন্যা শিশুটির ধর্ষণ ও হত্যাকাণ্ড সম্প্রতি ব্যাপক আন্দোলনের ঝড় তুলেছে সেই হত্যাকারীকে গ্রেফতারের দাবি করছে সেখানকার পুলিশ। পাঞ্জাব প্রদেশের মুখ্য মন্ত্রী একটি সংবাদ সম্মেলনে হত্যাকারী হিসেবে ২৪ বছর বয়সী এক ব্যক্তির নাম ঘোষণা করেন।

ঐ যুবককে সিরিয়ার কিলার হিসেবে উল্লেখ করা হচ্ছে। পাকিস্তানের পুলিশ বলছে তারা ঘটনাস্থল থেকে সংগ্রহ করা ডিএনএ নমুনার সাথে মিল খুঁজে পাওয়ার পরই তার উপর ভিত্তি করে ঐ ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছেন। প্রায় বারোশো মানুষের ডিএনএ পরীক্ষা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এক সংবাদ সম্মেলনে পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী শাহবাজ শরীফ দাবি করেছেন ইমরান আলি নামে গ্রেফতারকৃত ঐ যুবক ইতিমধ্যেই হত্যার ব্যাপারে স্বীকারোক্তি দিয়েছেন। জানুয়ারির শুরুর দিকের এই ঘটনার পর থেকেই হত্যাকারীকে ধরার ব্যাপারে ভীষণ চাপে ছিল পাঞ্জাবের পুলিশ। গত দুই বছরে অন্তত বারোটি একই ধরনের ধর্ষণ ও হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে একই এলাকায়। এর আগে জানা গেছে এর মধ্যে ৬টি নিহত মেয়ের দেহে একই ব্যক্তির ডিএনএ পেয়েছেন তদন্তকারীরা।

গত ৪ জানুয়ারি কোরান শিক্ষার ক্লাসে যাবার পথে নিখোঁজ হয় জয়নব আনসারি। কয়েক দিন পর তার মৃতদেহ পাওয়া যায় শহরের একটি আবর্জনা ফেলার জায়গায়। বলা হয়, তাকে ধর্ষণের পর গলা টিপে হত্যা করা হয়েছে। ওই দিনের সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজে জয়নবকে শেষবার জীবিত অবস্থায় দেখা গেছে। তাতে দেখা যায় একজন অচেনা লোকের হাত ধরে জয়নব হেঁটে যাচ্ছে। জয়নব আনসারীর হত্যাকাণ্ড নাড়িয়ে দেয় পুরো পাকিস্তানকেই। এই ঘটনায় দাঙ্গা-সহিংসতায় দু'জন নিহতও হয় দেশটিতে। গত ফেব্রুয়ারিতে একই ধরনেরে অপর এক ঘটনায় মুদাচ্ছির নামের এক সন্দেহভাজন পুলিশের গুলিতে নিহত হয়।

এখন সে নির্দোষ ছিল কিনা সেটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। কেননা তার মৃত্যুর পরও জয়নবসহ একইভাবে আরো তিনটি মেয়ে খুন হয়েছে। একটি মেয়ে বেঁচে গেছে। লাহোরে মুখ্যমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন জয়নবের বাবা আমীন আনসারিও। স্থানীয় একটি গণমাধ্যম হত্যাকারীকে তাদের পরিবারের পরিচিত বলে উল্লেখ করলেও মি. আনসারী তা নাকচ করে দেন। তাৎক্ষণিকভাবে দায়ী ব্যক্তি বা তার আইনজীবীর পক্ষ থেকে কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায় নি।

 

 

 

২৪ জানুয়ারি, ২০১৮ ০৯:৫৬:০৯