কিছু না বলেই শিক্ষার্থীর গালে থাপ্পড় বসিয়ে দেন র‌্যাব সদস্য
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম
অ+ অ-প্রিন্ট
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র (টিএসসি) তে টহলরত অবস্থায় ছাত্র ইউনিয়নের ঢাকা মহানগর সংসদের সাধারণ সম্পাদক জহুর-লাল রায়কে থাপ্পড় মারায় র‌্যাপিড অ্যাকশান ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) এর এক সদস্যকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। শুক্রবার (৫ জানুয়ারি) বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। বরখাস্ত হওয়া র‌্যাব সদস্য হলেন- র‌্যাব-৩ এর সিপাহী জিয়া (আনসার)।

বিষয়টি নিশ্চিত করে র‌্যাবের টিম ইনচার্জ আজিজুল হক বলেন, এ ঘটনায় র‌্যাব-৩ এর উপ-অধিনায়ক মেজর রাহাত হারুন খান অভিযুক্ত সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করার কথা জানিয়েছেন। শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত ওই শিক্ষার্থীর নাম জহলাল রায়। একটি প্রাইভেট মেডিকেলের ফাইনাল ইয়ারের এই শিক্ষার্থী বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের ঢাকা মহানগর সাধারণ সম্পাদক।

র‍্যাব সূত্রে জানা গেছে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় শুক্রবার র‍্যাব-৩ এর টহলের দায়িত্বে ছিল।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, টিএসসি এলাকায় চায়ের দোকান থেকে বের হওয়ার সময় গায়ের চাদর ঠিক করছিলেন জহলাল। এসময় র‌্যাব সদস্য জিয়ার কাঁধের র‍্যাংক ব্যাজে চাদর আটকে যায়। এতে কোনো কথা না বলেই ওই র‌্যাব সদস্য শিক্ষার্থীর গালে থাপ্পড় বসিয়ে দেন।

শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত জহলাল বলেন, ‘আমি চায়ের দোকান থেকে রাস্তায় আসার সময় ওই র‌্যাব সদস্যের গায়ে আমার চাদর লেগে যায়। তিনি সঙ্গে সঙ্গেই আমাকে থাপ্পড় দিয়ে দেন। এমন আচরণের কারণ জানতে চাইলে আমাকে হুমকিও দেন।’

র‍্যাব টহলের দায়িত্বে থাকা আজিজুল হক বলেন, ‘আমি বিষয়টি দেখার সঙ্গে সঙ্গেই র‍্যাব সদস্যকে ক্ষমা চাইতে বলি। অফিসিয়ালি তার বিরুদ্ধে অভিযোগ লিখা আছে। অফিস থেকে জানানো হয়েছে, তাকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে।’

ছাত্র ইউনিয়নের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখার সভাপতি তুহিন কান্তি দাস বলেন, ‘ক্যাম্পাসে টহল দিতে হলে প্রক্টরের অনুমতি নিতে হয়। র‌্যাব অনুমতি নিয়েছে কিনা আমরা জানি না। সে যে জায়গারই শিক্ষার্থী হোক, এভাবে থাপ্পড় দেয়া কোনভাবে মেনে নেয়া যায় না।’

তিনি বলেন, ‘আমার চাই- র‌্যাব এটার সুষ্ঠু তদন্ত করে জড়িত সদস্যকে শাস্তি দেবে। তাহলেই এধরনের ক্ষমতা দেখানোর প্রবণতা থেকে র‍্যাব সদস্যরা সরে আসবেন।’

ঘটনাস্থলে উপস্থিত হওয়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর মাঈনুদ্দিন করিম এ বিষয়ে বলেন, এই ঘটনায় লিখিত অভিযোগ দেয়া হচ্ছে। অভিযুক্ত সদস্যের বিচার করে র‌্যাব তার অনুলিপি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠাবে।

 

০৬ জানুয়ারি, ২০১৮ ১১:০১:৪৮