৫ দিন ধরে বৃদ্ধ মা-বাবাকে কাঁধে নিয়ে বাংলাদেশে
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম
অ+ অ-প্রিন্ট
মিয়ানমার থেকে পাহাড়, জঙ্গল, ঝোঁপঝাঁড় পেরিয়ে মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিপির চোখ ফাঁকি দিয়ে ৫ দিন ধরে গর্ভধারিণী মা ও জন্মদাতা বাবাকে কাঁধে নিয়ে উলুবনিয়া সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করেছে আকিয়াবের মো. আয়ুব (২৫)। কাঁধে ৮০ বছরের বৃদ্ধ পিতা দুলু মিয়া এবং ৬৫ বৃদ্ধ মা আছিয়া খাতুনকে নিয়ে পাড়ি দিচ্ছেন অনিশ্চয়তার দিনগুলো। বয়সের কারণে আয়ুবের বাবা খুব একটা হাঁটতে পারেন না আর মা অসুস্থ। তাই ছেলে আয়ুব ৫ দিন ধরে মা-বাবাকে কাঁধে নিয়ে বয়ে বেড়িয়েছেন সীমান্তের বিভিন্ন অঞ্চল।

সীমান্তের গহীন জঙ্গল আর পাহাড়ে রাত কেটেছে আয়ুবের মা-বাবাকে নিয়ে। মিয়ানমার থেকে সাথে আনা সামান্য শুকনো খাবার বৃদ্ধ মা-বাবাকে খাইয়েছেন। দু’দিনের মাথায় ফুরিয়ে গেছে সংরক্ষিত খাদ্য। ক্ষুধার পীড়া সইতে না পেরে শুধু চোখের জল ঝরিয়েছেন তারা। সৃষ্টিকর্তার অসীম কৃপায় সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করলে কিছু লোক তাদের খাদ্য ও টাকা পয়সা দিয়ে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে বলে জানান আয়ুব।

শনিবার কুতুপালং রাস্তার পাশে দেখা হলে আয়ুব বলেন, ‘অনেক কষ্ট ও ক্ষুধার যন্ত্রণা সহ্য করে ৫ দিন ধরে মা-বাবাকে কাঁধে বয়ে মায়ানমার থেকে বাংলাদেশ ঢুকেছেন তিনি। মিয়ানমার বাহিনী যখন একের পর এক গ্রাম পেট্টোল দিয়ে জ্বালিয়ে দিচ্ছিল, তখন তিনি মা-বাবাকে কাঁধে করে নিয়ে পালাতে থাকেন, ৫ দিন ধরে বিভিন্ন জঙ্গল পেরিয়ে অবশেষে উলুবনিয়া সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করেন।

শুধু এই পরিবার নয়, অসংখ্য পরিবারের হতাশার কাহিনীতে পরিপূর্ণ সীমান্তের পরিবেশ। রোহিঙ্গা শরণার্থীদের আর্তনাদে ভারী হয়ে উঠেছে সীমান্তের বাতাস। কেউ বৃদ্ধ বাবাকে নিয়ে এসেছেন, কেউ কাঁধে করে নিয়ে এসেছেন প্রতিবন্ধী বোনকে। কিন্তু বৃদ্ধ মা-বাবা ২ জনকে কাধেঁ নিয়ে দীর্ঘ পথ পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশের নজির দেখালেন আয়ুব। সবার মুখে হতাশা ও আতঙ্কের ছাপ। স্থানীয় জনগণ নতুন আসা রোহিঙ্গাদের শুকনো খাবার দিলেও তা প্রয়োজনের তুলনায় অপ্রতুল। তারা চায় সুন্দর জীবন, বাচাঁর মত মাথা গোজার ঠাঁই।

১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১০:০১:১২