রোহিঙ্গাদের নিয়ে ষড়যন্ত্রের গন্ধ পাওয়া যাচ্ছে: ওবায়দুল কাদের
মোঃ জাহাঙ্গী আলম, নোয়াখালী
অ+ অ-প্রিন্ট
সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের
রোহিঙ্গা ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কূটনৈতিক তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সস্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। মন্ত্রী আজ ৯ সেপ্টেম্বর) শনিবার নোয়াখালীর কবিরহাট ৫০ শয্যা বিশিষ্ট কবিরহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন। 

ওবায়দুল কাদের  আরো বলেন, রোহিঙ্গা ইস্যুতে প্রথম দিন থেকেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কূটনৈতিক তৎপরতা শুরু করেছেন এবং আজও অব্যাহত আছে। প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে এই রোহিঙ্গা স্রোত আমরা মোকাবেলা করতে পারবো। জাতিসংঘ ও সারা বিশ্ব এ সংকট মোবাকেলায় প্রধানমন্ত্রীর ভূমিকার প্রশংসা করেছেন। সারা বিশ্ব বলছে সংকট মোকাবেলায় শেখ হাসিনার সরকার সফল হয়েছে।

বিএনপি শেখ হাসিনার উন্নয়ন সহ্য করে না তাই শেখ হাসিনা মুক্ত বাংলাদেশ চায়। তারা উন্নয়নের দুধের সর খাওয়া দল। তারা ক্ষমতার জন্য পাগল হয়ে গেছে। নির্বাচন কমিশনও তাদের খুশি করতে পারবে না। 

কবিরহাট পৌরসভার মেয়র জহিরুল হক রায়হানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, লাইন ডিরেক্টর সি বি এইচ সি, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, ডা. মোহাম্মদ আবুল হাসেম খান, পরিচালক (স্বাস্থ্য) চট্টগ্রাম, ডা. এএম মজিবুল হক, চীফ ইঞ্জিনিয়ার (স্বাস্থ্য) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এম এ মহি, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নুরুল আমিন রুমি প্রমুখ। 

ওবায়দুল কাদের বলেন, কক্সবাজার এবং উখিয়াসহ ওই অঞ্চলের রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সাথে কিছু কিছু ষড়যন্ত্রের গন্ধ পাওয়া যাচ্ছে। এই ষড়যন্ত্রের সাথে বিএনপির নাম শুনা যাচ্ছে। এই অপতৎপরতা বন্ধ করুন। বিএনপি আজ নোংরা খেলায় মেতে উঠেছে, তারা মিয়ানমার বা অত্যাচারির বিরুদ্ধে কথা বলে না। কথা বলে সরকারের বিরুদ্ধে। 

তিনি বলেন, আমরা ইতিহাসের এক কঠিনতম সময় অতিক্রম করছি। হাওর, উপকূল এলাকার জলোচ্ছ্বাস এবং সাম্প্রতিক বন্যার ক্ষয়ক্ষতির ধকল কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে তাদের অভ্যন্তরীণ ঘটনায় সেনাবাহিনীর অভিযানে বিতাড়িত হয়ে এ পর্যন্ত তিন লক্ষাধিক রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সামাল দিতে হচ্ছে। আমরা উদ্বিগ্ন, প্রাকৃতিক ক্ষয়ক্ষতির পর শরনার্থীদের এ বিশাল বোঝা কিভাবে বহন করবো। 

প্রধানমন্ত্রীর মনোবল, সাহসী ভূমিকা ও বিচক্ষণ নেতৃত্বের মধ্যে দিয়ে এ অবস্থা কেটে যাবে। 

ওবায়দুল কাদের বলেন, শরণার্থীর সাথে ষড়যন্ত্র, অবৈধ অস্ত্র, মাদক ও দেশী-বিদেশী ষড়যন্ত্র অনুপ্রবেশ করতে পারে। আমরা নির্যাতিত মুসলমানদের আশ্রয় দিয়েছি, আমরা তাদের সাথে আছি। জাতিসংঘ, ইউরোপীয় ইউনিয়ন এবং আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে রোহিঙ্গাদের তাদের দেশে ফেরত নেয়ার ব্যাপারে তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছি। 

০৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ২৩:১০:২৯